NAVIGATION MENU

‘ধর্ষণ বন্ধ, স্টপ রেপ’ উদ্বিগ্ন ভার্সিটি ছাত্রীর আর্তি


ধর্ষণ বন্ধে প্রচার চালাতে পথে নেমেছেন ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী এলিনা আহমেদ। তিনি বলেন,‘বাংলাদেশে দিন দিন ধর্ষণের সংখ্যা বেড়ে চলেছে।

একদিকে মেয়েরা ধর্ষণের শিকার হচ্ছে, অন্যদিকে ধর্ষকের তাৎক্ষণিক কড়া বিচার হচ্ছে না। সুস্থ সমাজের জন্য সুস্থ মানসিকতা দরকার। ধর্ষণ বন্ধে প্রচার চালাতে তাই রাজপথে নেমে পড়েছি।

শনিবার দুপুরে পদ্মা বিধৈৗত জেলা রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ বাসস্ট্যান্ডে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে দাঁড়িয়ে কথাগুলো বলছিলেন এলিনা আহমেদ (২৬)। তিনি ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

এদিন দুপুর ১২টার দিকে গোয়ালন্দ বাসস্ট্যান্ডে এলিনা যাত্রাবিরতি দেন। আলাপকালে তিনি বলেন, বগুড়ার শেরপুরে তাঁর গ্রামের বাড়ি। সামাজিক অবক্ষয়ের কথা ভেবে তিনি বসে থাকতে পারেননি। তাই ধর্ষণ বন্ধে ২০ জানুয়ারি একটি সাইকেল নিয়ে তিনি বেরিয়ে পড়েন।

তার সাইকেলের সামনে ‘ধর্ষণ বন্ধ, স্টপ রেপ’ প্ল্যাকার্ড ঝোলানো ছিল। প্রথম দিন তিনি ঢাকার মোহাম্মদপুর থেকে ময়মনসিংহে যান। সেখানে রাত্রিযাপন শেষে দ্বিতীয় দিন চলে যান হালুয়াঘাট উপজেলায়। ওই দিন গফরগাঁও উপজেলা হয়ে শেরপুর জেলায় যান। সেখান থেকে জামালপুর জেলা হয়ে মধুপুর দিয়ে টাঙ্গাইল জেলা শহরে যান।

টাঙ্গাইলে রাত কাটিয়ে পৌঁছান মানিকগঞ্জ জেলায়। শনিবার  মানিকগঞ্জ থেকে যাত্রা করেন তিনি, গন্তব্য যশোরের বেনাপোল।এলিনার দাবি, ২০১৮ সাল থেকে ধর্ষণের ঘটনা বেড়ে গেছে। এ ধরনের যতগুলা ঘটনা ঘটেছে, প্রতিটি ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেন তিনি।

ধর্ষণের ঘটনা বন্ধে পুরুষদের সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান তিনি। নিজের সম্পর্কে তিনি বলেন, মেয়েদের আত্মনির্ভরশীল হতে হবে। আত্মরক্ষার কৌশল শিখতে হবে। একজন নারীর একা চলতে হলে কিছুটা আত্মরক্ষার কৌশল জানা দরকার বলে তিনি মনে করেন। যাত্রাপথে বিভিন্ন স্থানে বিরতি দিয়ে সব শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে কথা বলছেন তিনি। সবাই তাঁর সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করছেন বলে তিনি জানান।

এস এস