NAVIGATION MENU

অতিমারী করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রশংসায় জাতিসংঘ


অতিমারি করোনার কারণে সৃষ্ট স্বাস্থ্যগত ও আর্থ-সামাজিক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় বাংলাদেশের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে এক ভার্চ্যুয়াল বৈঠকে এ কথা বলেন তিনি। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে ঢাকার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

বৈঠকে গুতেরেস বলেন, কোনো ঝুঁকি নিরসনের বৈশ্বিক নেতৃত্বে বাংলাদেশ সবসময়েই শীর্ষস্থানীয়। তাই করোনা মহামারি মোকাবিলায় বাংলাদেশের এ ধরণের সাফল্য দেখে আমি মোটেও অবাক হইনি। বৈঠকে রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়েও আলোচনা হয়েছে।

ভাসানচরে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের জন্য জাতিসংঘের মানবিক সহায়তা চেয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। রোহিঙ্গা ইস্যুতেও বাংলাদেশের ভূমিকার প্রশংসা করে জাতিসংঘ মহাসচিব বলেন, আমাদের লক্ষ্য অভিন্ন, আর তা হলো রোহিঙ্গাদের মায়ানমারে ফেরত পাঠানো।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন তিন দিনের সফরে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৮ হাজার ৩৯৫ জন। মারা যাওয়া ১১ জনের মধ্যে ৬ জন পুরুষ ও ৫ জন নারী।

তাদের সবাই হাসপাতালে মারা গেছেন।নতুন করে ৪৭০ জন শনাক্তসহ দেশে মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ লাখ ৪৫ হাজার ৪২৪ জন। দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৫ হাজার ৩২ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

শুক্রবার দুপুরে করোনা ভাইরাসের বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, এ সময়ের মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৭৪৩ জন। এ নিয়ে দেশে মোট সুস্থ হয়েছেন ৪ লাখ ৯১ হাজার ৩৬৭ জন।

বাংলাদেশে গত ৮ মার্চ প্রথম করোনা ভাইরাসের রোগী শনাক্ত হলেও প্রথম মৃত্যুর খবর আসে ১৮ মার্চ। দিন দিন করোনা রোগী শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ায়

নড়েচড়ে বসে সরকার।

ভাইরাসটি যেন ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সব সরকারি-বেসরকারি অফিস বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

করোনার বর্তমান পরিস্থিতির মধ্যেই ৩১ মে থেকে দেশের সরকারি-বেসরকারি অফিস খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে কয়েক ধাপ বাড়ানোর পর ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি ছিল। সেই ছুটি ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

এস এস