NAVIGATION MENU

অস্ট্রেলিয়ার স্টেডিয়ামে জুলাই থেকে দর্শক ফিরছে


অস্ট্রেলিয়ার মাঠে ফিরছে দর্শক। জুলাই থেকে কিছু ভেন্যুতে ১০ হাজার পর্যন্ত দর্শক প্রবেশের অনুমতি দিচ্ছে অস্ট্রেলিয়ার কেন্দ্রীয় সরকার। ফলে শেষ পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হলে দর্শকের উপস্থিতিতেই হতে পারে এ টুর্নামেন্ট। 

সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় হতে যাওয়া এ টুর্নামেন্ট নিয়ে অবশ্য ধোঁয়াশা কাটেনি এখনও, আইসিসি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে আরও মাসখানেক পর্যবেক্ষণের ঘোষণা দিয়েছে। তবে আসছে অস্ট্রেলিয়ান গ্রীষ্মে আন্তর্জাতিক ও বিগ ব্যাশ ক্রিকেটে দর্শকরা মাঠে ঢুকতে পারবেন বলেই ধারণা করা হচ্ছে। 

আপাতত যেসব মাঠের ধারণক্ষমতা ৪০ হাজারের কম, সেসব মাঠেই দর্শক প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে। সেক্ষেত্রে অস্ট্রেলিয়ার বড় কয়েকটি ক্রিকেট ভেন্যু- এমসিজি, এসসিজি, অ্যাডিলেড ওভাল, গ্যাবা ও পার্থ স্টেডিয়াম আপাতত এসবের বাইরে থাকবে। 

এসব ভেন্যু নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে আরও সময় লাগবে বলে জানিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন। তবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য ১৫টি সফরকারি দলকে আতিথেয়তা দেওয়ার চ্যালেঞ্জ এখনও রয়ে গেছে, সেটির সমাধানেও লাগবে আরও সময়। এর আগে ক্রিকেট অস্ট্রলিয়ার প্রধান নির্বাহী কেভিন রবার্টস বলেছিলেন, চলমান পরিস্থিতিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজন হয়ে পড়বে ঝুঁকিপূর্ণ। 

“আসছে সপ্তাহগুলিতে এসব পর্যবেক্ষণ করে দেখা হবে। বড় ভেন্যুগুলির ক্ষেত্রে প্রতিটির জন্য আলাদা করে অনুমতির বিষয় আসতে পারে, প্রতিটি রাজ্যের বা অঞ্চলের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তার সঙ্গে আলোচনা করে বিষয়টি ঠিক হবে”, বলেছেন মরিসন। 

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাদ দিলেও ভারত সফরের ক্ষেত্রে দর্শকের উপস্থিতি আর্থিক দিক দিয়ে লাভবান করবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে। এরই মাঝে তারা ২০২০-২১ মৌসুমের ঘরোয়া আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পূর্ণ সূচি ঘোষণা করেছে, যার মাঝে আগস্টে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে খেলায় ফেরার কথা তাদের। তবে এ সিরিজ নিয়ে আপাতত আছে অনিশ্চয়তা। 

দর্শকের উপস্থিতিতে ভারত সফরের ম্যাচগুলি না হলে লভ্যাংশ ২৫-৩০ শতাংশ কম হবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার। সেক্ষেত্রে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের কাছ থেকে বাজেট সংক্রান্ত বিষয়েও চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হবে তাদের। 

ভারত অবশ্য আপাতত আন্তর্জাতিক সফর থেকে বিরত থাকছে। জুনে শ্রীলঙ্কা সফরের পর জিম্বাবুয়ে সফরও বাতিল করেছে তারা। তবে অস্ট্রেলিয়া সফরে আরও কিছু সময় পাবে তারা, যেটি হওয়ার কথা ডিসেম্বরে। 

ওআ/