NAVIGATION MENU

আরও ২৮ দিনের রিমান্ডে সাহেদ


রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মোঃ সাহেদকে ৪টি মামলায় আরও ২৮ দিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেছে আদালত।

রবিবার (২৬ জুলাই) সকালে ঢাকা চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নেওয়া হয় সাহেদকে। সেখানে মোট ৪০ দিনের রিমান্ড চেয়েছিল র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)। উভয় পক্ষের শুনানি শেষে ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট রাজেশ চৌধুরী  প্রতিটি মামলায় রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মো. সাহেদ ও রিজেন্ট গ্রুপের ব্যবস্থাপনার পরিচালক মাসুদ পারভেজের ৭ দিন করে মোট ২৮ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, গ্রেপ্তারের পর সাহেদ ও পারভেজের বিরুদ্ধে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় পৃথক তিন মামলা এবং উত্তরা পূর্ব থানায় একটি মামলা হয়। শুনানির সময় সাহেদ নিজে আদালতে কথা বলেন। 

রাষ্ট্রপক্ষের ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের প্রধান সরকারি কৌঁসুলি আবদুল্লাহ আবু আদালতকে বলেন, সাহেদ একজন প্রতারক। ১০ হাজার করোনা টেস্টের মধ্যে ছয় হাজার করোনা টেস্টের ভুয়া রিপোর্ট দিয়েছেন আসামি সাহেদ। সাহেদ মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলেছেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ২০ জুলাই রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় মেট্রোরেল প্রকল্পের একটি সাব-কন্ট্রাক্টর প্রতিষ্ঠান একসিডের পক্ষে রেজাউল করিম বাদী হয়ে এ মামলা করেন। মামলায় সাহেদ ও অজ্ঞাতনামাদের আসামি করা হয়। 

মামলার অভিযোগে বলা হয়, মেট্রোরেলে কর্মরত ৭৬ জন কর্মীর করোনাভাইরাস পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করে রিজেন্ট হাসপাতাল। এজন্য মাথাপিছু সাড়ে ৩ হাজার টাকা নেয়া হয়। কিন্তু পরীক্ষা না করেই করোনাভাইরাসের ভুয়া প্রতিবেদন দেওয়া হয়। এ কারণে মেট্রোরেল প্রকল্পের কর্মীদের মধ্যে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যায়।

মেট্রোরেল প্রকল্প শ্রমিকপ্রতি সাড়ে ৩ হাজার টাকা জমা দিয়ে ৭৬ জনের করোনা পরীক্ষা করায় রিজেন্ট হাসপাতালে। তিনজনের ফল পজিটিভ ও ৭৩ জনের নেগেটিভ আসে। পরে তারা জানতে পারেন সব প্রতিবেদনই ভুয়া ছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতে প্রতিষ্ঠানটি ২০ জুলাই মামলা করে উত্তরা পশ্চিম থানায়।

এর আগে, বুধবার (১৫ জুলাই) সকালে বোরকা পরিহিত অবস্থায় ছদ্মবেশে ভারতে পালানোর সময় সাতক্ষীরার দেবহাটা সীমান্ত থেকে সাহেদকে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার করা হয়।

প্রসঙ্গত ৬ জুলাই, নানা অভিযোগের ভিত্তিতে রিজেন্ট হাসপাতালে অভিযান চালায় র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। এরপর অভিযোগের সত্যতা মেলায় রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুর শাখা সিলগালা করে দেয় র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদসহ ১৭ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়।

এডিবি/