NAVIGATION MENU

ইভটিজিং নিয়ে সালিশ বৈঠককালে নিহত ২


মুন্সিগঞ্জ জেলার   উত্তর ইসলামপুর এলাকায় ইভটিজিং নিয়ে সালিশবৈঠককালে  দু’পক্ষে সংঘর্ষে ছুরিকাঘাতে দুই তরুণ নিহত হয়েছে। এ কাণ্ডে ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন আরও একজন।

নিহতরা হলেন- উত্তর ইসলামপুর এলাকার মো. কাসেম পাঠানের ছেলে ইমন পাঠান (২৩) ও একই এলাকার বাচ্চু মিয়ার ছেলে সাকিব হোসেন (১৯)। জখম ব্যক্তির নাম আওলাদ হোসেন মিন্টু প্রধান (৪০)।

তিনি একই এলাকার আনোয়ার আলীর ছেলে । তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার (২৪ মার্চ) রাত সাড়ে ১১ টার দিকে সদর উপজেলার উত্তর ইসলামপুর এলাকায় এ কাণ্ড ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৫ জনকে আটক করেছে। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ইভটিজিং নিয়ে দু’ পক্ষের বিরোধ মীমাংসা চলছিল মিন্টুর বাড়ির সামনে জামালের দোকান প্রাঙ্গণে। বৈঠকের এক পর্যায়ে ইমন পাঠান ও অভি গ্রুপ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। সংঘর্ষে ছুরিকাঘাতে ইমন, সাকিব ও মিন্টু মাটিতে লুটিয়ে পড়ে।

পরে রক্তাক্ত অবস্থায় আশপাশের লোকজন তাদের মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে ইমন পাঠানকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। গুরুতর অবস্থায় সাকিব ও মিন্টুকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। কিন্তু ঢাকায় নেওয়ার পথে সাকিবের মৃত হয়। মিন্টু ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

এস এস