ন্যাভিগেশন মেনু

কলাপাড়ায় সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার, পরিবারের দাবি হত্যা, স্বামী আটক


পটুয়াখালীর কলাপাড়ার নীলগঞ্জের সুলতানগঞ্জ গ্রামের শ্বশুরবাড়ি থেকে সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধু আমেনা খাতুনের  ঝুলন্ত মরদেহ  উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রবিবার সকালে স্থানীয়দের কাজ থেকে খবর পেয়ে ঘরের মেঝেতে মাটিতে পা থাকা তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে।  পুলিশ এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহতের স্বামী সাকিব মৃধাকে আটক করেছে। 

নিহতের স্বজনরা জানায়,  দুই বছর আগে কলাপাড়ার পূর্ব ধুলাসার গ্রামের নুরু ফরাজীর মেয়ে আমেনা সাথে সাকিবের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই আমেনার উপর অত্যাচার চালাত স্বামী।

নিহত গৃহবধূর পিতা নুরু ফরাজী অভিযোগ করেন, তার মেয়েকে হত্যার পর টেনে হিঁচড়ে এনে গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলিয়ে রেখেছে। সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা কোন মা আত্মহত্যা করতে পারে না। তারা হত্যাকারীর শান্তি দাবি করেন।

কলাপাড়া থানার এস আই গোলাম মাওলা জানান, শনিবার রাতের কোন একসময় এ ঘটনা ঘটেছে। নিহত গৃহবধু সাত মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলে। কেন, কী কারনে সে আত্মহত্যা করেছে নাকি হত্যার পর মরদেহ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।  গৃহবধুর স্বামী কে আটক করা হয়েছে।  আজ সকালে মরদেহ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী মর্গে পাঠানো হয়েছে।  এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।