NAVIGATION MENU

চলতি বছরই মিলতে পারে ‘কোভিশিল্ড’, জানালো সেরাম ইনস্টিটিউট


ভারতজুড়ে আগের তুলনায় করোনা সংক্রমণের হার খানিকটা কম। তবে ভ্যাকসিন না আসা পর্যন্ত পুরোপুরি স্বাভাবিক ছন্দে ফিরতে পারছেন না মানুষ। আর এরই মধ্যে আশার খবর শোনালেন সেরাম ইনস্টিটিউটের সিইও আদার পুনাওয়ালা। জানিয়ে দিলেন, ডিসেম্বরের মধ্যেই তৈরি হয়ে যেতে পারে অক্সফোর্ডের COVID-19 ভ্যাকসিন কোভিশিল্ড।

পুনাওয়ালা জানান, এই ভ্যাকসিনটির ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল সফল হলে ডিসেম্বরের শুরুতেই তা তৈরি হয়ে যাবে। বিশ্বজুড়ে অক্সফোর্ডের AstraZeneca ভ্যাকসিনটির তৃতীয় পর্বের ট্রায়াল চলছে। সেটিই ভারতে কোভিশিল্ড হিসেবে ধরা দেবে। জানা গিয়েছে, সেই ট্রায়াল আর মাস খানেকের মধ্যেই শেষ হয়ে যেতে পারে। 

তেমনটা হলে চলতি বছরই কাঙ্খিত করোনা ভ্যাকসিন চলে আসবে ভারতের হাতে। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে পুনাওয়ালা আরও ইঙ্গিত দেন, আগামী বছরের (২০২১) এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যেই ভ্যাকসিনের ১০০ মিলিয়ন বা ১০ কোটি ডোজ তৈরি হয়ে যাবে। 

অর্থাৎ ১০ কোটি মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া যাবে মারণ ভাইরাসের ভ্যাকসিন। তবে পুরোটাই নির্ভর করছে ব্রিটেনে এই ভ্যাকসিনের ট্রায়ালে কী তথ্য উঠে আসে, তার উপর। ভ্যাকসিনটি সবুজ সংকেত পেয়ে গেলেই এমার্জেন্সি-ব্যবহারের জন্য লাইসেন্সের ব্যবস্থা করার পরিকল্পনাও রয়েছে সেরামের। 

ইতিমধ্যেই প্রথম দুই পর্যায়ের ট্রায়ালে সফল হয়েছে অক্সফোর্ডের এই ভ্যাকসিন। বিশ্বজুড়ে যে সমস্ত ভ্যাকসিন তৈরি হচ্ছে, তার মধ্যে অনেকটাই এগিয়ে কোভিশিল্ড। 

করোনার বিরুদ্ধে প্রথামিকভাবে জোর লড়াই দিতে সক্ষম এই ভ্যাকসিন বলেই এখনও পর্যন্ত দাবি করা হচ্ছে। তবে সত্যিই এর প্রভাব কতখানি, ট্রায়াল শেষের আগে তা বলা সম্ভব নয়। 

পুনাওয়ালার কথায়, “সব ঠিকঠাক থাকলে ডিসেম্বরেই ট্রায়াল শেষ হয়ে যাবে। তাহলে জানুয়ারিতেই ভারতে আত্মপ্রকাশ করবে এই ভ্যাকসিন। তবে ব্রিটেনের ট্রায়ালের উপর পুরোটা নির্ভর করছে।”

ওআ/