ন্যাভিগেশন মেনু

চুয়াডাঙ্গায় বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমার চোর চক্রের মূলহোতাসহ গ্রেফতার- ৭


চুয়াডাঙ্গায় আন্তঃজেলা বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমার চোর চক্রের মূলহোতাসহ ৭ জনকে গ্রেফতার করেছে দামুড়হুদা মডেল থানা পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে চুরি হওয়া মালামাল এবং চোরাই কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন উপকরণ। শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২ টার সময় চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে সাংবাদিকদেরকে এসব তথ্য জানান চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার আর এম ফয়জুর রহমান।


গ্রেফতারকৃতরা হলো- চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার শিবনগর গ্রামের আজগর আলী (৩৫), হুদাপাড়া গ্রামের নায়েব আলী (২৬), কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর থানার তাজপুর গ্রামের সেলিম হোসেন(৩৫), কুমারখালী থানার বানিয়াপাড়া বারাদী গ্রামের বাবু (৫৫), কুষ্টিয়া সদরের রঞ্জু আহমেদ (৪২), কুমারখালী থানার বারাদী গ্রামের সোহেল (৩২) এবং নাটোর জেলার গুরুদাসপুর থানার শ্যামনগর গ্রামের রফিকুল ইসলাম (৩৭)।


চুয়াডাঙ্গার পুলিশ সুপার আর এম ফয়জুর রহমান জানান, ২৮ মে থানায় লিখিত এজাহার দায়ের করেন এক ভুক্তভোগী। অভিযোগে জানান অজ্ঞাতনামা চোরেরা চারুলিয়া গ্রামের দক্ষিন মাঠে বাদীর গভীর সেচ প্রকল্পের জমি থেকে পল্লী বিদ্যুতের বৈদ্যুতিক পিলার হতে ৩ টি বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমার চুরি করে নিয়ে গেছে। এছাড়া গত ৬ জুন আরাে একজন লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। পরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ১২ জুন ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করেন আজগর আলী নামে একজনকে। তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক পরে গ্রেফতার করা হয় সেলিম, বাবু ও রফিকুল ইসলামকে। সেখান থেকে উদ্ধার করা হয় চোরাই কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন উপকরণ। 

গ্রেফতারকৃত আসামীদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে কুষ্টিয়া জেলার বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করা হয় রঞ্জু ও সোহেল রানাকে। এসময় তাদের কাছ থেকে চুরি যাওয়া ট্রান্সফরমারের তামার কয়েল উদ্ধার করা হয়। পরে দামুড়হুদা থেকে নায়েব আলী নামে আরও একজনকে গ্রেফতার করা হয়।