NAVIGATION MENU

ছেলের পাত্রী দেখতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার গৃহবধূ


ছেলেকে বিয়ে দেবেন বলে পাত্রী দেখতে গিয়েছিলেন মা। কিন্তু সেটাই তার কাল হলো। গণধর্ষণের শিকার হতে হলো পাত্রের মাকে (৪০)। এ কাণ্ড দেশের উত্তর জনপদ জেলা নাটোরের লালপুরে। 

এ ঘটনায় পুলিশ সাতজনকে গ্রেপ্তার করে আজ বৃহস্পতিবার নাটোর আদালতে প্রেরণ করেছে।এর আগে গত মঙ্গলবার লালপুরের ওয়ালিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বুধবার এ বিষয়ে থানায় একটি মামলা হয়। 

বুধবার (১৮ নভেম্বর) লালপুরের ওয়ালিয়ায় ছেলের বিয়ের জন্য পাত্রী দেখতে যান ভুক্তভোগী। সেখানে ভুক্তভোগীকে পালাক্রমে ১০/১২ জন ধর্ষণ করে। পরে চারজনকে নির্দিষ্ট করে অজ্ঞাত আরও সাত-আটজনের বিরুদ্ধে লালপুর থানায় ধর্ষণ মামলা করেন ওই গৃহবধূ। 

এজাহারভুক্ত চার আসামিসহ সাতজনকে ওয়ালিয়া ফাঁড়ির পুলিশ গ্রেপ্তার করে। ওয়ালিয়া পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) কৃষ্ণ মোহন সরকার বলেন, গত মঙ্গলবার পাশ্ববর্তী বড়াইগ্রাম উপজেলার ধানাইদহ এলাকার এক গৃহবধুকে তার ছেলের বিয়ের জন্য পাত্রী দেখার কথা বলে ওয়ালিয়া ইউনিয়নের ফুলবাড়ী গ্রামে ডেকে আনা হয়। 

পরে রাতে ওয়ালিয়া গ্রামের আমজাম তলা এলাকায় নির্জন স্থানে পালাক্রমে ১০-১২ জন তাকে ধর্ষণ করে। ভুক্তভোগী নারী চারজনসহ অজ্ঞাত আরও সাত-আটজনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে বুধবার মামলা দায়ের করেন। ওয়ালিয়া ফাঁড়ীর পুলিশ সাতজনকে গ্রেপ্তার করে।

এস এস