NAVIGATION MENU

টিকা নিয়েও করোনায় মারা গেলেন সাংসদ মাহমুদ, মোট মৃত্যু ৮৫০২


 টিকা নেওয়ার এক মাসের মাথায় করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে এবার মারা গেছেন সাংসদ মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েস।

আজ  বৃহস্পতিবার বেলা দেড়টার দিকে ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। মাহমুদ উস সামাদ সিলেট-৩ আসনে শাসক দল আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচিত সাংসদ ছিলেন।

এদিকে টিকা নেওয়ার পর সস্ত্রীক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেন দেশ বরেণ্য চলচ্চিত্র পরিচালক, প্রযোজক ও অভিনেতা কাজী হায়াৎ।

চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী, বর্তমানে তিনি বাসাতেই আছেন। এর আগে, গত ২ মার্চ স্বপরিবারে করোনার টিকা নেন কাজী হায়াৎ।কাজী হায়াৎ বলেন, ‘গত ২ মার্চ করোনার টিকা নিয়েছি। এরপর গত ৬ মার্চ শরীরে হালকা জ্বর অনুভব হয়। ৮ তারিখ করোনা পরীক্ষা করার পর জানতে পারি, রিপোর্ট পজেটিভ।’

 এদিকে গেল ২৪ ঘণ্টায় বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ৮ হাজার ৫০২ জন।এছাড়া নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৫১ জন।

এ নিয়ে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫ লাখ ৫৪ হাজার ১৫৬ জনে।সাংসদ মাহমুদ উস সামাদ ৭ মার্চ থেকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এর আগে তিনি গত ১০ ফেব্রুয়ারি কোভিড-১৯–এর টিকা নিয়েছিলেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সাংসদ মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর ব্যক্তিগত সচিব জুলহাস আহমদ ।৭ মার্চ রাতে মাহমুদ উস সামাদ সিলেট থেকে ঢাকায় আসেন। এ সময় তিনি অসুস্থতা বোধ করায় একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হন।

পরে ৮ মার্চ সকালে করোনার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার পর বিকেলে করোনা পজিটিভ ফল আসে। এরপর থেকে তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ভেন্টিলেশনে নেওয়া হয়।

এস এস