NAVIGATION MENU

দেশের প্রথম সাইবার জিম এমআইএসটিতে স্থাপিত


মিলিটারি ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি (এমআইএসটি) তে প্রায় ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে দেশের প্রথম সাইবার জিম স্থাপিত হতে যাচ্ছে।

এমআইএসটি এর অ্যাকাডেমিক ভবনে রবিবার ‘বিশ্বব্যাপী সাইবার হুমকি এবং বাংলাদেশের প্রস্তুতি’ শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এ সাইবার জিম স্থাপনের ঘোষণা দেন।

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক বলেন, প্রযুক্তি যত বাড়বে, তার ঝুঁকিও বাড়বে। যদি এ ঝুঁকি মোকাবিলা করতে না পারি, তাহলে আমরা পিছিয়ে যাব। তারই প্রস্তুতির অংশ হিসেবে আমরা এমআইএসটিতে দেশের প্রথম সাইবার জিম স্থাপন করতে যাচ্ছি।

জিমে যেমন আমরা শারীরিকভাবে সুস্থ, সবল থাকতে যাই। তেমনি সাইবার স্পেসে নিজেদের নিরাপদ রাখতে এ জিম তৈরি করা হবে। যেখানে সবাই একসঙ্গে কাজ করার সুযোগ পাবে।

আমরা এমন একটি জিম করবো, যেখানে সাইবার হামলাকারী এবং প্রতিহতকারী একসঙ্গে সিমুলেশনের (মহড়া) মাধ্যমে কাজ করবে। একদল আক্রমণ করবে, অন্যদল প্রতিহত করবে।

আরো পড়ুন:

দেশ প্রযুক্তি বিশ্বে নেতৃত্বের জায়গা অর্জন করেছেঃ ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী  

তিনি বলেন, বাংলাদেশ এখন মোবাইল ব্যাংকিংয়ে বিশ্বে চ্যাম্পিয়ন। প্রতিদিন প্রায় এক হাজার ১০০ কোটি টাকার লেনদেন হয় মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে।

তবে আমরা সাইবার ঝুঁকিতেও আছি। ব্যক্তি, পরিবার, প্রতিষ্ঠান ও রাষ্ট্র; এ চারটি পর্যায়েই আমরা সাইবার ঝুঁকিতে আছি। তবে আজকের তরুণদেরই সাইবার যুদ্ধে আমাদের নেতৃত্ব দিতে হবে।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জিয়াউল আহসান বলেন, সাইবার হামলা শুধু আর্থিক প্রয়োজন বা তথ্য চুরি করতে হয় না। বরং কোনো মহল সাধারণ জনগণকে উস্কে দিয়ে নিজেদের স্বার্থ হাসিলের জন্য সাইবার হামলাকে বেছে নেয়।

বাংলাদেশে যত ফেসবুক আইডি আছে, তার প্রায় ২১ শতাংশ ভুয়া আইডি। যেগুলো দিয়ে অপপ্রচার চালানো হয়। এসব বিষয়ে আমাদের সতর্ক থাকতে হবে।

এতে সঞ্চালনা করেন এমআইএসটি এর কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের প্রধান এয়ার কমোডর আফজাল হোসেন।

এর আগে এক প্যানেল আলোচনায় অংশ নেন দ্য ইনস্টিটিউট অব পলিসি, অ্যাডভোকেসি ও গভর্নেন্সের চেয়ারম্যান ড. সৈয়দ মুনির খসরু, জাতীয় টেলিযোগাযোগ মনিটরিং কেন্দ্রের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জিয়াউল আহসান ও জাতীয় ডাটা সেন্টারের পরিচালক প্রকৌশলী তারিক বরকত উল্লাহ।

 

এস এ  /এসএস