NAVIGATION MENU

নোয়াখালীতে ধর্ষণ মামলায় এক আসামির যাবজ্জীবন


নোয়াখালীতে গৃহবধূকে ধর্ষণ করায় এক ব্যক্তির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে আসামিকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরও দুই বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

বুধবার (২৮ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে এ মামলায় বিজ্ঞ আদালত ডাক্তারসহ ১১ জনের সাক্ষ্য-প্রমাণ শেষে নোয়াখালী নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক মোহাম্মদ সামস্ উদ্দিন খালেক আসামির উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তি মো. ইব্রাহীম (৫০) নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার বুড়িরচর ইউনিয়নের শূন্যেরচর গ্রামের মুজিবর রহমানের বাড়ির আবদুল হাইয়ের ছেলে।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, ‘গৃহবধূর স্বামী চট্টগ্রামে কাজ করার সুবাদে ২১মাস বয়সী মেয়েকে নিয়ে বেড়িবাঁধের ওপর তার ঘরে একা থাকতেন। এর সুযোগে তাকে বিভিন্ন সময় কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল একই এলাকার শূন্যচরের আব্দুল হাইয়ের ছেলে ইব্রাহিম। ২০০৪ সালের ১১ এপ্রিল রাত ৮টার দিকে হাতিয়ার বুড়িরচর ইউনিয়নের শূন্যেরচর বেড়িবাঁধের উপর গৃহবধূর বসতঘরে ঢুকে ঘুমন্ত অবস্থায় গৃহবধূ (২১) কে ধর্ষণ করে ধর্ষক ইব্রাহীম।’

২০০৪ সালের ১২ এপ্রিল সকালে স্থানীয়দের সহযোগিতায় গৃহবধূকে হাতিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

এ ঘটনায় গৃহবধূ বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ইব্রাহিমকে আসামি করে হাতিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও হাতিয়া থানার এসআই পনি ভূষণ মামলাটি তদন্ত শেষে ২০০৪ সালের ২৮ জুলাই আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন, নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পিপি অ্যাডভোকেট মর্জুজা আলী পাটোয়ারী।

আসামি পক্ষে ছিলেন, অ্যাডভোকেট আব্দুর রহমান,অ্যাডভোকেট আবু সাঈদ নোমান, অ্যাডভোকেট মোসলেউদ্দিন।

ডিএ/ওয়াই এ/ওআ