NAVIGATION MENU

পদ্মা ঘেসা দৌলতদিয়া পতিতা পল্লীর শিশুরা পেল বই-খাতা


বাংলাদেশে এ মুহূর্তে সর্ববৃহৎ পতিতাপল্লী হিসেবে নাম লিখিয়েছে পদ্মা নদী ঘেসা রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া পতিতা পল্লী। এ পতিতা পল্লীতে রয়েছে কয়েক হাজার পতিতা। পরিবেশ উন্নয়নের গতিশীল কার্যক্রমের অংশ হিসেবে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সেখানকার তিন শতাধিক শিশুকে দেয়া হবে রং পেনসিল, চিত্রাঙ্কন খাতা ও স্কুল ব্যাগ।

রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার মোঃ মিজানুর রহমান পিপিএম তার সম্মেলন কক্ষে প্রেস ব্রিফিং এ কথা জানিয়েছেন। ব্রিফিং-এ উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ সালাহ উদ্দিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফজলুল করিম, সহকারী পুলিশ সুপার (পাংশা সার্কেল) লাবীব আব্দুল্লাহ, রাজবাড়ী থানার ওসি স্বপন কুমার মজুমদারসহ জেলা পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তারা। ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার বলেন, আগামী বুধবার সকালে রাজবাড়ী সফরে আসছেন ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান। তিনি সফরের শুরুতেই দৌলতদিয়া যৌনপল্লী সংলগ্ন মুক্তি মহিলা সমিতির কার্যালয়ে সেখানকার চাইল্ড ক্লাবের অনুষ্ঠানে যোগদান করবেন। ওই অনুষ্ঠানেই সেখানকার ১ থেকে ৬ বছর বয়সী শিশুদের হাতে রং পেনসিল, চিত্রাঙ্কন খাতা ও স্কুল ব্যাগ তুলে দেবেন। তিনি আরো বলেন, ওই সব শিশুরা রং পেনসিলের আঁচড়ে ফুটিয়ে তুলবে তার মনের রং। যা তাদের জীবনের চলার পথে আনবে অনুপ্রেরণা।

দেশের বৃহত্তর পতিতা পল্লীটির অবস্থান রাজবাড়ীর দৌলতদিয়ায়। পল্লীটি দেশের অন্যতম ক্রাইম জোন হিসেবেও পরিচিত। এখানে যৌনকর্মী ও আগতদের নির্যাতন যেন নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার। তারা ছিলো শক্তিশালী চক্রের হাতে জিম্মি।

তবে পাল্টেছে এখন সে চিত্র। পুলিশি তৎপরতায় দালাল, চাঁদাবাজ, নারী পাচারকারী এবং অসহায় যৌনকর্মী ও আগতদের নির্যাতনকারী চক্রের হোতারা এখন কোণঠাসা। গ্রেপ্তার এড়াতে তারা রয়েছেন আত্মগোপনে।

আর এই শৃঙ্খলা আনতে রাজবাড়ীর নবাগত পুলিশ সুপার দেননি ছাড়। হোতাদের সাথে সম্পর্ক ও মাদক বিক্রির দায়ে এক পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার পাশাপাশি চার পুলিশ কর্মকর্তাকে করেছেন ক্লোজ। সেই সাথে পল্লীর চার পাশে থাকা ৭টি দরোজা করেছেন তালাবন্ধ এবং মূল গেটের সামনে বসিয়েছেন পুলিশ বক্স।

এতে করে পল্লীর বাসিন্দা হয়েছেন আনন্দিত। তারা এখন অপতৎপরতাকারীদের নির্যাতন থেকে হয়েছেন মুক্ত।

এস এস