NAVIGATION MENU

পানির নিচে ‘প্রেম নিবেদনে’গিয়ে প্রেমিকের মৃত্যু


ভিন্নভাবে প্রেমিকাকে ‘প্রেম নিবেদন’  করতে  ‘ডুবো কেবিন’ বেছে নিয়েছিলেন স্টিভেন ওয়েবার নামের এক যুবক।

কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস! প্রেমিকাকে প্রস্তাব দিতে পারলেও তার জবাব শোনার আগেই দম আটকে মারা গেলেন হতভাগা স্টিভেন।

বৃহস্পতিবার তানজানিয়ার একটি ‘আন্ডার-ওয়াটার রিসোর্টে’ নির্মম মৃত্যু হয়েছে  স্টিভেন ওয়েবারের।

রবিবার আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, কিছুদিন আগে পেমবা দ্বীপের মানতা রিসোর্টে প্রেমিকা কেনেশা অ্যান্তোনি ছুটি কাটাতে গিয়েছিলেন স্টিভেন ওয়েবার নামে এক ব্যক্তি।

তীর থেকে অন্তত ২৫০ মিটার দূরের নিরিবিলি রির্সোটটি চার রাতের জন্য ভাড়া করেছিলেন স্টিভেন। প্রতিরাতের ভাড়া ছিল ১ হাজার ৭০০ ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১ লাখ ৪৩ হাজার টাকা প্রায়)।

এর ডুবো কেবিনটি পানির অন্তত ১০ মিটার গভীরে ছিল। সেখানেই কেনেশাকে বিয়ের প্রস্তাব দিচ্ছিলেন স্টিভেন।

রিসোর্টে ওঠার তৃতীয় দিন গত ১৯ সেপ্টেম্বর বিকেলে আন্ডার-ওয়াটার গগলস (চশমা) ও ফ্লিপার পরে পানিতে ডুব দেন স্টিভেন ওয়েবার।

ডুবো কেবিনের বাইরে থেকে জানালার মাধ্যমে একটি প্রেমপত্র দেখাচ্ছেন তিনি আর সেটি ভিডিও করছেন কেনেশা। এর পরপরই বিয়ের আংটি বের করেন স্টিভেন। কিন্তু, দুর্ভাগ্য! পানি থেকে আর জীবিত উঠে আসা হয়নি তাঁর।

আরো পড়ুনঃ

এবার প্রেমের টানে জার্মানি তরুণী খুলনায়

ফেসবুক পোস্টে কেনেশা জানিয়েছেন, তিনি প্রস্তাবের উত্তরে হয়তো লাখ লাখবার হ্যাঁ বলতেন। কিন্তু, সেটা জানতেও পারেননি স্টিভেন।

তিনি আরও বলেছেন, আমরা বাকি জীবন একসঙ্গে কাটানোর শুরুটা উদযাপনও করতে পারলাম না। ভাগ্যের নির্মম খেলায় জীবনের সেরা দিনটাই সবচেয়ে খারাপ দিন হয়ে গেলো।

এদিকে মানতা রিসোর্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার বিকেলে দুর্ভাগ্যজনকভাবে পানিতে ডুবে মারা যান স্টিভেন। তার কিছু একটা সমস্যা হয়েছিল। কিন্তু, উদ্ধারকারীরা ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই তিনি মারা যান। এ ঘটনায় সবাই গভীরভাবে শোকাহত।


এস এ / এসএস