NAVIGATION MENU

পেঁয়াজের মূল্য অস্বাভাবিক বৃদ্ধির কোন কারণ নেই: বাণিজ্য মন্ত্রণালয়


‘বাজারে পর্যাপ্ত পেঁয়াজ রয়েছে। দেশে উৎপাদিত পেঁয়াজ (মুড়িকাটা) বাজারে এসেছে, বিভিন্ন দেশ থেকে চাহিদা মোতাবেক প্রয়োজনীয় পেঁয়াজ আমদানি করা হয়েছে এবং হচ্ছে। এখনও প্রতিদিন আমদানিকৃত পেঁয়াজ দেশে আসছে।

 পেঁয়াজ আমদানির ক্ষেত্রে আমদানিকারকগণকে প্রয়োজনীয় সব ধরনের সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। দেশি ও আমদানি করা পেঁয়াজের সরবরাহ স্বাভাবিক রয়েছে। প্রতিটি বাজারে পর্যাপ্ত দেশি ও আমদানি করা পেঁয়াজ মজুত রয়েছে। পেঁয়াজের মূল্য অস্বাভাবিক বৃদ্ধির কোন সংগত কারণ নেই।’

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে-  সরকার পেঁয়াজের সরবারহ ও মূল্য স্বাভাবিক রাখতে বাজার অভিযান জোরদার করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। বাজারে পেঁয়াজ, তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের সরবরাহ, মূল্য তদারকির জন্য ব্যাপক ভাবে বাজার অভিযান চালানো হবে।

পাশাপাশি জেলা প্রশাসন দেশব্যাপি এ অভিযান জোরদার করবে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় থেকে ইতোমধ্যে বিভাগ ও জেলা প্রশাসনের কাছে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। ব্যবসায়ীগণকে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের আমদানি মূল্য, ক্রয় মূল্যের চালান/রশিদ সংরক্ষণে রাখার অনুরোধ করা হয়েছে।

একই সাথে দোকানে বিক্রয় মূল্যের তালিকা দোকানে টাঙ্গীয়ে রাখার অনুরোধ করা হচ্ছে। অন্যায় ভাবে কোন ব্যবসায়ীকে হয়রানি করা হবে না, কারসাজি করে অন্যায় ভাবে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য মজুত করলে, মূল্য বৃদ্ধি করলে বা কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করার চেষ্ট করলে তাদের বিরুদ্ধে আইন মোতাবেক কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পেঁয়াজের আমদানি, সরবরাহ ও বিক্রয় মূল্যের বিষয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় তথা সরকার সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। সরকার টিসিবি’র মাধ্যমে ঢাকাসহ দেশব্যাপী প্রায় দুইশত  ট্রাক সেলের মাধ্যমে ৩৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রয় অব্যাহত রেখেছে।

বাজারে চাহিদা থাকা পর্যন্ত এ বিক্রয় অব্যাহত থাকবে। এছাড়া অনেক আমদানি কারক ও সামাজিক সংগঠন বিভন্ন জেলায় ন্যায্য মুল্যে ৪৫ টাকা মূল্যে ট্রাক সেলের মাধ্যমে পেঁয়াজ বিক্রয় করছে।

এস এস