ন্যাভিগেশন মেনু

প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হলো চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব-ইস্পাহানি মিনি ম্যারাথন


প্রথমবারের মতো চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয়েছে মিনি ম্যারাথন-২০২৪। ম্যারাথনের স্পন্সর প্রতিষ্ঠান হচ্ছে ইস্পাহানি।

শনিবার (৯ মার্চ) সকালে এ ম্যারাথনের সমাপনীতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন জাতীয় সংসদ সদস্য মাহবুব উর রহমান রুহেল।

এর আগে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এ প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন। সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব সভাপতি সালাহ্‌উদ্দিন মো. রেজা। পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি চৌধুরী ফরিদ।

চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক শহীদুল্লাহ শাহরিয়ারে সঞ্চালনায় উদ্বোধনী ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন- সাধারণ সম্পাদক দেবদুলাল ভৌমিক। বক্তব্য রাখেন ইস্পানি টি লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার মঈন উদ্দিন হাসান, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের কার্যকরী সদস্য জসীম চৌধুরী সবুজ, সিইউজে সভাপতি তপন চক্রবর্তী ও সাধারণ সম্পাদক ম. শামসুল ইসলাম, প্রেস ক্লাবের ক্রীড়া সম্পাদক এম. সরওয়ারুল আলম সোহেল এবং সিজেকেএস’র সহ-সভাপতি মো. হাফিজুর রহমান প্রমূখ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইস্পাহানি টি লিমিটেডের জিএম (মার্কেটিং) ওমর হান্নান, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সহ-সভাপতি মনজুর কাদের মনজু, অর্থ সম্পাদক রাশেদ মাহমুদ, সমাজসেবা ও আপ্যায়ন সম্পাদক আল রাহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক খোরশেদুল আলম শামীম, কার্যকরী সদস্য মো. আইয়ুব আলী।,

অনুষ্ঠানে অতিথিরা বলেন, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের ম্যারাথন একটি অনন্য আয়োজন। এ ম্যারাথন সাংবাদিকদের পাশাপাশি অন্যান্যদের মাঝে সামাজিক এবং স্বাস্থ্য সচেতনতা সৃষ্টি করবে।

এই মিনি ম্যারথন ছয়টি ক্যাটাগরিতে অনুষ্ঠিত হয়। ক্যাটাগরিগুলো হলো অনুর্ধ্ব চল্লিশ, ৪১ থেকে ৫০, ৫১ থেকে ৬০, ৬১ থেকে ৭০, সত্তরোর্ধ্ব এবং সদস্যা ক্যাটাগরি। চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে থেকে শুরু হয়ে জামালখান মোড়-আসকার দীঘি-কাজীর দেউড়ি-পুরাতন বিমান অফিস-লাভ লেইন- বৌদ্ধমন্দির মোড়-চেরাগী মোড় অতিক্রম করে আবার চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে এসে ম্যারাথন দৌড় সমাপ্ত হয়।

সদস্যা ক্যাটাগরিতে শিরোপা লাভ করেন, সুচন্দা নন্দী। সত্তরোর্ধ্বে প্রথম পঙ্কজ কুমার দস্তিদার, দ্বিতীয় নির্মল চন্দ্র দাশ, তৃতীয় দেবপ্রসাদ দাশ দেবু, চতুর্থ বিপুল বড়ুয়া, পঞ্চম সুলতান আহমদ আশরাফী, ষষ্ঠ মাখন লাল সরকার, সপ্তম মঈনুদ্দীন কাদেরী শওকত, অষ্টম সিরাজুল করিম মানিক, নবম জালাল উদ্দীন আহমদ চৌধুরী, দশম জাহেদুল করিম কচি।

৬১ থেকে ৭০-এ প্রথম দেবাশীষ বড়ুয়া দেবু, দ্বিতীয় প্রদীপ নন্দী, তৃতীয় স্বপন কুমার মল্লিক, চতুর্থ জাকির হোসেন লুলু. পঞ্চম স.ম ইব্রাহীম, ষষ্ঠ মো. আবিদ হোসেন, সপ্তম বাবুল চৌধুরী, অষ্টম শিশির বড়ুয়া, নবম তাপস বড়ুয়া, দশম সুলতান মাহমুদ সেলিম, একাদশ অঞ্জন কুমার সেন।

৫০ থেকে ৬০-এ প্রথম গোলাম মাওলা মুরাদ, দ্বিতীয় খোরশেদুল আলম শামীম, তৃতীয় প্রণব বড়ুয়া অর্ণব, চতুর্থ ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী, পঞ্চম মো. ইউসুব সবুর, ষষ্ঠ ম. শামসুল ইসলাম, সপ্তম জাকারিয়া চৌধুরী, অষ্টম মো. আহসানুল কবির রিটন, নবম সালাহ্উ্দ্দিন মো. রেজা, দশম রনজিত কুমার দে।

৪১ থেকে ৫০-এ প্রথম সুমন গোস্বামী, দ্বিতীয় রাজিব রায়হান, তৃতীয় রনি দাশ, চতুর্থ আবীর চক্রবর্তী, পঞ্চম সুজিত চন্দ্র সাহা, ষষ্ঠ এসএম ইফতেখারুল ইসলাম, সপ্তম মিজানুর রহমান, অষ্টম সাইদুল, নবম প্রণব বল, দশম অরুণ বিকাশ দে।

অনুর্ধ্ব চল্লিশ-এ প্রথম আজহার মাহমুদ, দ্বিতীয় জাকের আহমেদ, তৃতীয় মো. সাইফুল ইসলাম, চতুর্থ রাশেদ এইচ সরকার, পঞ্চম হুমায়ুন মাসুদ, ষষ্ঠ নাজমুল আলম সাদেকী, সপ্তম মো. রাশেদুল আলম, অষ্টম আবু মোশাররফ রাসেল, নবম সুবল বড়ুয়া, দশম রাহুল কান্তি দাশ নয়ন।

প্রতিযোগিতায় প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় ছাড়াও বিশেষ পুরস্কার এবং অংশগ্রহণকারীদের পুরস্কৃত করা হয়। ম্যারাথনের কো-স্পন্সর কেআর স্টীল, ফুড স্পন্সর আরজেএম ফুটওয়্যার লিমিটেড।