ন্যাভিগেশন মেনু

ফেসবুক লাইভে কষ্টের কথা জানিয়ে গৃহবধূর ‘আত্মহত্যা’


রাজশাহীর চারঘাট পৌর শহরের হলের মোড় এলাকায় ফেসবুক লাইভে কষ্টের কথা জানিয়ে রহিমা আক্তার (২৪) নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছেন। মঙ্গলবার ভোরে তিনি ভাড়া বাসায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

রহিমার স্বামী সায়েম ইসলাম ওরফে সাগর একটি ওষুধ কোম্পানিতে চাকরি করেন। তাঁরা পুঠিয়া উপজেলার স্থায়ী বাসিন্দা হলেও চারঘাটে ভাড়া থাকতেন। আত্মহত্যার সময় রহিমা বাড়িতে একাই ছিলেন।

ঈদের দিন বাবার বাড়ি ও শ্বশুরবাড়িতে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়েছিলেন রহিমা। তবে ভালো না লাগায় স্বামী ও সন্তানকে রেখে একাই ভাড়া বাড়িতে ফিরে আসেন এবং ভোররাতে আত্মহত্যা করেন।

চারঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিদ্দিকুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, রহিমার বাবা-মায়ের ছাড়াছাড়ির পর বাবা পুনরায় বিয়ে করায় রহিমা একাকিত্বে ভুগছিলেন এবং বিষণ্নতায় আক্রান্ত ছিলেন। তিনি আগে কয়েকবার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন।

ওসি সিদ্দিকুর রহমান আরও জানান, ভোরে ফেসবুক লাইভে এসে রহিমা তাঁর দুঃখের কথা বলেন। তিনি মা-বাবাকে নিয়ে কষ্টের কথা এবং স্বামীর উদ্দেশ্যে বলেন, ‘তুমি সন্তানের বাবা-মায়ের দায়িত্ব পালন করবে। আমি তোমাদের দুজনকে খুব ভালোবাসি। 

যখন তুমি বেকার ছিলে, আমি তোমাকে ছেড়ে যাইনি। এখন তোমার চাকরি হয়েছে। যে নতুন জীবনসঙ্গী হবে, তাঁকে সময় দিয়ো।’ লাইভ শেষে তিনি গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। সকালে পুলিশ তাঁর মরদেহ উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠায় এবং পরে পরিবারের কাছে বুঝিয়ে দেয়। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।