NAVIGATION MENU

ববি শিক্ষার্থী সাওদা হত্যা: আসামীর সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন


বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাওদা বেগম হত্যা মামলার আসামী রাসেল মিয়ার সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের রায় ঘোষণা করেছেন আদালত। একই সঙ্গে ২০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৬ মাসের কারাদণ্ড প্রদানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

সোমবার (২৩ নভেম্বর) আসামীর ডেথ রেফারেন্স ও আপিলের চূড়ান্ত শুনানি নিয়ে বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথ এবং বিচারপতি এএসএম আব্দুল মোবিনের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করেন।

আদালতে প্রাথমিক শুনানিতে অংশ নেন সিনিয়র আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন। পরবর্তীতে মামলার পূর্ণাঙ্গ শুনানি করেন আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী এম. মাসুদ রানা, মো. আসাদ উদ্দিন ও মোহাম্মদ নোয়াব আলী।

অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল শাহীন আহমেদ খান।

আইনজীবী শিশির মনির জানান, ডেথ রেফারেন্স ও আপিল নামঞ্জুর করে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের ছাত্র রাসেলের সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত ২০১৩ সালের ৫ সেপ্টেম্বর হিসাববিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী সাওদা (১৯) বিশ্ববিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে হত্যাকাণ্ডের শিকার হন। ঘটনার দিন সাওদার মা সাহিদা বেগম বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানায় একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী রাসেল মিয়াসহ (২২) অজ্ঞাত দুই-তিনজনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার এজাহারে বাদী উল্লেখ করেন, তার মেয়ের সঙ্গে রাসেলের প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। পারিবারিক কারণে সাওদা রাসেলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে। পরে একই বছরের ১৪ সেপ্টেম্বর পুলিশ আসামী রাসেল মিয়াকে গ্রেপ্তার করে।

মামলার বিচার শেষে ২০১৫ সালের ১ জুন বরিশাল জেলা ও দায়রা জজ আসামী রাসেল মিয়াকে মৃত্যুদণ্ড প্রদান করেন এবং ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেন। এরপর ডেথ রেফারেন্স হাইকোর্টে পাঠানো হয়। একই সঙ্গে আসামীও আপিল করেন।

এস এ /এডিবি