NAVIGATION MENU

বাংলাদেশ অংশ সুন্দরবনে ২০ ঘণ্টা ধরে আগুন জ্বলছে


দাবানলের কবলে বিশ্বের বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ সুন্দরবন। বিশ ঘণ্টা পার হলেও বাংলাদেশের দক্ষিণ জনপদ জেলা খুলনা-বাগেরহাটের সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের শরণখোলা রেঞ্জের দাসের ভারানি এলাকায় লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে আসেনি। 

আগুন নেভাতে আজ  মঙ্গলবার (০৪ মে) সকালে দ্বিতীয় দিনের মতো ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট কাজ শুরু করেছে। 

বাগেরহাট ফায়ার সার্ভিসের সহকারী উপপরিচালক গোলাম সরোয়ার জানান, সুন্দরবনের দাসের ভারানী এলাকায় যে গহীন বনে আগুন লেগেছে তার কাছাকাছি জলের কোনো উৎস না থাকায় ৪-৫ কিলোমিটার দূরে পাইপ খাটিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চলছে। ঘটনাস্থলের আশপাশে বেশ কিছু এলাকায় আগুন ও ধোয়ার কুণ্ডলি রয়েছে।

সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের শরণখোলা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক জয়নাল আবেদিন বলেন, দ্বিতীয় দিনের মতো আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করার জন্য আমাদের শতাধিক স্টাফ ও কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে যাচ্ছেন। ফায়ার সার্ভিসও চেষ্টা করছে। আশা করছি আজকের মধ্যে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে পারবে।

এর আগে সোমবার (৩ মে) সন্ধ্যা ৭টায় দিনের আলো ফুরিয়ে গেলে অভিযান বন্ধ করে ফায়ার সার্ভিস। সোমবার দুপুরে দাসের ভারানি এলাকায় আগুন লাগে। সন্ধ্যা পর্যন্ত অন্তত ২ একর বন জুড়ে আগুন জ্বলছিল বলে জানিয়েছে বন বিভাগ।এ ঘটনায় তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বন বিভাগ। 

এদিকে আগুন বনের সমতল ভূমিতে ছড়িয়ে পড়েছে।শরণখেলা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক জয়নাল আবেদীনকে প্রধান করে এই কমিটি গঠন করা হয়।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- শরণখেলা স্টেশন কর্মকর্তা আব্দুল মান্নান ও ধানসাগর স্টেশন কর্মকর্তা মো. ফরিদুল ইসলাম।তদন্ত কমিটিকে আগামী সাতদিনের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন, বাগেরহাটের উপ-সহকারী পরিচালক মো. গোলাম সরোয়ার বলেন, লোকালয় থেকে প্রায় ৬ থেকে ৭ কিলোমিটার দূরে বনের মধ্যে এই আগুন লেগেছে। ফলে আগুন নেভানোর জন্য আমাদের বেগ পেতে হচ্ছে। শুষ্ক মৌসুমে গাছের পাতার স্তূপ থাকায় আগুন খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে সমতল ভূমির বিভিন্ন স্থানে। আবার আশেপাশে জলের কোনো উৎস নেই।

এর আগে ৮ ফেব্রুয়ারি আগুন লেগে সুন্দরবনের অন্তত ৩ শতাংশ বন ভূমি পুড়ে যায়।

এস এস