ন্যাভিগেশন মেনু

বাজেটে যেসব পণ্যের দাম বাড়ছে


 জাতীয় সংসদে আগামী অর্থবছরের (২০২৪-২৫) জন্য ৭ লাখ ৯৭ হাজার কোটি টাকার বাজেট উপস্থাপন করছেন অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী।  এই  প্রস্তাবিত বাজেটে বিভিন্ন ধরনের পণ্যে শুল্ক ও কর হ্রাস-বৃদ্ধির প্রস্তাবনা এসেছে।

বৃহস্পতিবার (০৬ জুন) বেলা ৩টায় জাতীয় সংসদে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে ২০২৪-২৫ অর্থবছরের বাজেট উপস্থাপন শুরু হয়।  

যেসব পণ্যের দাম বাড়ছে

আইসক্রিম
সকল ধরনের আইসক্রিমের ওপর বিদ্যমান সম্পূরক শুল্ক হার ৫ শতাংশের পরিবর্তে ১০ শতাংশ নির্ধারণ করা হচ্ছে।

কোমল পানীয়
কার্বনেটেড বেভারেজে সম্পূরক শুল্ক হার ২৫ শতাংশের পরিবর্তে ৩০ শতাংশ নির্ধারণের প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী।

এতে কোমল পানীয়ের এর জন্য নির্ধারিত মাত্রার উপাদান অপেক্ষা ভিন্নতর মাত্রার উপাদান সম্বলিত পানীয়ের ক্ষেত্রে সম্পূরক শুল্ক হার ৩৫ শতাংশের পরিবর্তে ৪০ শতাংশ নির্ধারণ করা হচ্ছে।

কাজু বাদাম
কাজু বাদাম আমদানিতে আমদানি শুল্ক ১৫% হতে কমিয়ে ৫% করা হয়েছে। তবে দেশে উৎপাদিত কাজু বাদামেরর বাজার বিকাশের উদ্দেশ্যে কাজু বাদাম আমদানিতে ১০% রেগুলেটরি ডিউটি আরোপ করা হয়েছে।

সিগারেট
সিগারেট ও এ জাতীয় পণ্যের সম্পূরক শুল্কের হার ৬৫ শতাংশের পরিবর্তে ৬৬ শতাংশ নির্ধারণ করা হচ্ছে।

এছাড়া সিগারেট বা বিড়ি পেপারের স্থানীয় উৎপাদন পর্যায়ে মূসকের হার সাড়ে ৭ শতাংশের পরিবর্তে ১৫ শতাংশ নির্ধারণ হচ্ছে।

মোবাইল সিম
মোবাইল ফোনের সিম/রিম কার্ড ব্যবহারের মাধ্যমে প্রদত্ত সেবার বিপরীতে বিদ্যমান সম্পূরক শুল্ক ১৫ শতাংশের পরিবর্তে ২০ শতাংশ নির্ধারণ করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

এ ছাড়াও প্রতিটি সিম কার্ড বা ই-সিম সরবরাহের বিপরীতে বিদ্যমান মূসকের পরিমাণ ২০০ টাকার পরিবর্তে ৩০০ টাকা হচ্ছে।

ভ্যাট ৫ শতাংশ থেকে ১৫% করা হচ্ছে। এতে দাম বাড়বে

আমসত্ব (ম্যাংগো বার), ম্যাংগো জুস, আনারসের জুস, পেয়ারার জুস, তেতুলের জুস এবং ১ থেকে ৫০ ওয়াটের অধিক ক্ষমতা সম্পন্ন বিদ্যুৎসাশ্রয়ী বাল্ব ও টিউব লাইট।

এলআরপিসি তার
এলআরপিসি তার উৎপাদনকারী শিল্পের কাঁচামাল ওয়্যার অব আইরন বা নন-অ্যালয় স্টিল আমদানিতে আমদানি শুল্ক ১০% হতে বাড়িয়ে ১৫% ধার্য করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

এ ছাড়া মোবাইলের এসএমএস-কলরেট, এয়ারকন্ডিশনার ও রেফ্রিজারেটর, পানির ফিল্টার, এলইডি বাল্ব, গাড়ি কনভার্সন খরচ, ফার্নেস অয়েল, লুব অয়েল, মিনারেল লুব অয়েল ও বেজ অয়েল, ফিলিং স্টেশন স্থাপন, সিএনজি কনভার্সন কিট ও সিলিন্ডার, বিদ্যুৎকেন্দ্রের ইকুইপমেন্ট, ইপিজেডের আমদানিকৃত যন্ত্রপাতি ও নির্মাণ সামগ্রী, কার্বনেটেড বেভারেজ, এমিউজমেন্ট পার্ক, থিম পার্ক ও পর্যটন খাতও দাম বাড়ার তালিকায় রয়েছে।