NAVIGATION MENU

বিমানবাহিনীর বিমানচলাচল বিভাগ পরিদর্শন করলেন চিনের প্রেসিডেন্ট সি


চিনা জাতির ঐতিহ্যবাসী বসন্ত উত্সবের প্রাক্কালে চিনা কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক, দেশের প্রেসিডেন্ট এবং কেন্দ্রীয় সামরিক কমিশনের চেয়ারম্যান সি চিন পিং গত বৃহস্পতিবার বিমানবাহিনীর একটি বিভাগ পরিদর্শন করেন। তিনি পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটি ও কেন্দ্রীয় সামরিক কমিশনের পক্ষ থেকে পিপলস লিবারেশন আর্মির সকল কমান্ডার ও সৈনিক, সশস্ত্র পুলিশ বাহিনীর কর্মকর্তা ও সৈনিক, সামরিক বাহিনীর বেসামরিক কর্মী ও রিজার্ভ কর্মীদের নববর্ষের শুভেচ্ছা জানান এবং তাদের সবার জন্য নতুন বছরে কল্যাণ কামনা করেন।


বৃহস্পতিবার সকালে সেনাবাহিনীতে মহামারী প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের পরিস্থিতির খোঁজ-খবর জানার জন্য সি চিন পিং প্রথমে বিমানবাহিনীর বিমানচলাচল বিভাগের হাসপাতালে যান। প্রেসিডেন্ট সি সেখানে বলেন, করোনাভাইরাস মহামারীর প্রাদুর্ভাবের পর থেকে পার্টির আদেশে সেনাবাহিনী কাজ করে আসছে।


তিনি বলেন, তারা মহামারী প্রতিরোধে সেনাবাহিনী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে এবং উল্লেখযোগ্য অবদান রেখেছে। বর্তমানে বিদেশে মহামারীর পরিস্থিতি বেশ খারাপ। চিনে মহামারী প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের কাজও সহজ নয়। বিশেষ করে আসন্ন বসন্ত উত্সবের ছুটিতে মানুষের যাতায়াত এবং সমাবেশ বেড়ে যাওয়ার ফলে মহামারী ছড়ানোর ঝুঁকিও বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা আছে। তাই সেনাবাহিনীতে মহামারী প্রতিরোধকাজ জোরদার করতে হবে এবং স্থানীয় অঞ্চলের জন্য মহামারী প্রতিরোধে বিভিন্ন প্রস্তুতিও নিতে হবে।


আউটফিল্ড হ্যাঙ্গারে সি চিনপিং বিভাগের সামষ্টিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেন এবং যুদ্ধের প্রধান সাজসরঞ্জাম পরিদর্শন করেন। তাকে জানানো হয় যে, একটি নির্দিষ্ট ধরনের বিশেষ বিমান তথ্য আদানপ্রদানের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। সি চিনপিং বিমানটিতে আরোহণ করেন এবং মিশন-কেবিনে মিশন-সিস্টেম পর্যবেক্ষণ করেন। তিনি বিশেষ বিমানের কাজ করার প্রক্রিয়া সম্পর্কে অবহিত হন।


এসময় তিনি বলেন, আধুনিক যুদ্ধে তথ্যনিয়ন্ত্রণের দক্ষতা যুদ্ধজয়ের মূল উপাদান হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিনি উন্নত সরঞ্জামের বিকাশ, পেশাদার প্রশিক্ষণ, লক্ষ্যযুক্ত প্রশিক্ষণ এবং নতুন মানের যুদ্ধ-কার্যকারিতার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।


সি চিনপিং অফিসার ও সৈনিকদের লেখাপড়া এবং জীবন সম্পর্কেও খোঁজখবর নেন। সেখানকার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে তিনি একটি উড়ন্ত ব্রিগেডের বিমান পরিষেবা ভবনে যান। ফ্লাইট প্রযুক্তির গবেষণা চালানোর জন্য নতুন পাইলটদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছিল সেখানে।


প্রেসিডেন্ট সি’র উপস্থিতিতে অনেকে আবেগাপ্লুত হন। তারা প্রেসিডেন্ট সি’কে সালাম জানান এবং প্রশিক্ষণের পরিস্থিতি সম্পর্কে জানান।


সেখানে প্রেসিডেন্ট সি বলেন, সেনাবাহিনীর জন্য সামরিক প্রশিক্ষণ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তিনি আরও বলেন, কেন্দ্রীয় সামরিক কমিশনের সামরিক প্রশিক্ষণের চেতনা বাস্তবায়ন করা, বিমান বাহিনীর প্রকৃত অবস্থার সমন্বয় করা, প্রকৃত যুদ্ধের জন্য সামরিক প্রশিক্ষণের দিকে গভীর মনোযোগ দেওয়া এবং প্রশিক্ষণের মান আর জয়ের ক্ষমতা অব্যাহতভাবে উন্নত করা প্রয়োজন।


এরপরে, সি চিন পিং বসন্ত উত্সবের আগে সংশ্লিষ্ট সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সুবিধার প্রস্তুতি পর্যবেক্ষণ করেন এবং সেনাবাহিনীর মহামারী প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ সম্পর্কে জানতে চান। তুমুল করতালির মধ্যে সি চিন পিং আন্তরিকভাবে পুরো বিভাগের কর্মকর্তা ও সৈন্যদের প্রতিনিধিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। তিনি সবার সাথে একটি গ্রুপ ছবি তোলেন।


এসময় প্রেসিডেন্ট সি বলেন, “চলতি বছর আমাদের পার্টির প্রতিষ্ঠার শততম বার্ষিকী এবং চতুর্দশ পাঁচশালা পরিকল্পনার শুরুর বছর। এই বছরের কাজটি ভালভাবে করা আমাদের জন্য তাত্পর্যপূর্ণ। পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটি এবং কেন্দ্রীয় সামরিক কমিশনের সিদ্ধান্ত মনোযোগ দিয়ে কার্যকর করা, মহামারী প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের ওপর গুরুত্ব দেওয়া, প্রশিক্ষণ জোরদার করা, এবং বিভিন্ন কাজকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া নতুন সূচনাবিন্দুতে সেনাবাহিনীর জন্য গুরুত্বপূর্ণ। শ্রেষ্ঠ ফলাফল দিয়ে পার্টির প্রতিষ্ঠার শততম বার্ষিকীকে স্বাগত জানাতে হবে।”


সবশেষে তিনি বলেন, “বসন্ত উত্সব আসন্ন।পুরো সেনাবাহিনীর সদস্যকে অবশ্যই জাতীয় নিরাপত্তা সুরক্ষা এবং জনগণের সুখ ও কল্যাণ রক্ষার দায়িত্ব  পালন করতে হবে। তা ছাড়া, মহামারী প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের জন্য কর্মকর্তা ও সৈন্যদেরকে ছুটির দিনেও সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে, যাতে সবাই একটি সুখী, আনন্দময় এবং নিরাপদ বসন্ত উত্সব উপভোগ করতে পারে।


অবশেষে প্রেসিডেন্ট সি কমরেডদেরকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানান। তিনি বলেন, “আমি আপনাদের সকলকে চিনা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানাই; সকলের সুস্বাস্থ্য, কাজের অগ্রগতি, সুখী পারিবারিক জীবন কামনা করি। ষাঁড়বর্ষ সবার জন্য শুভ হোক।”  

তথ্য: সিআরআিই