NAVIGATION MENU

বিশ্ব শিক্ষক দিবস ৫ অক্টোবর


আজ বিশ্ব শিক্ষক দিবস। শিক্ষকেরা হচ্ছেন মানুষ গড়ার কারিগর। শিক্ষা ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে শিক্ষকদের অসামান্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে বিশ্ব শিক্ষক দিবস পালন করা হয়।

'ভবিষ্যতের সংকট মোকাবেলায় শিক্ষক সমাজ' এই প্রতিপাদ্য নিয়ে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

১৯৯৪ সালে জাতিসংঘের অঙ্গসংস্থা ইউনেস্কোর মহাপরিচালক ড. ফ্রেডরিখ এম মেয়র বিশ্বব্যাপী ৫ অক্টোবর শিক্ষকদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে শিক্ষক দিবস পালনের ঘোষণা দেন।

১৯৯৫ সাল থেকে শিক্ষকদের অবদান স্মরন করে বিশ্বের অন্তত ১০০ দেশে প্রতি বছর অক্টোবরের ৫ তারিখ দিবসটি পালিত হয়ে আসছে। এডুকেশন ইন্টারন্যাশনাল ও তার সহযোগী ৪০১ সংগঠন দিবসটি উদযাপনে মূল ভূমিকা রাখে।

সোমবার (৫ অক্টোবর)  বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (বাশিস) ও এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ লিয়াঁজো ফোরামের যৌথ উদ্যোগে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক দফা দাবিতে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।

ফোরামের মুখপাত্র মো. নজরুল ইসলাম রনি জানান, ‘মুজিববর্ষকে অবিস্মরণীয় করে রাখতে বঙ্গবন্ধুর শিক্ষাদর্শন তথা শিক্ষাব্যবস্থা অবিলম্বে জাতীয়করণ ঘোষণা করতে হবে এই দাবিতে আমরা সমাবেশ আহ্বান করেছি। সফলভাবে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।’

শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে আরও বলা হয়, এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের ২৫ শতাংশ ঈদ বোনাস গত ১৬ বছরেও পরিবর্তন হয়নি। এক হাজার টাকা বাড়ি ভাড়া আর ৫০০ টাকা চিকিৎসা ভাতা নিয়ে করোনাকালে গৃহবন্দি শিক্ষকদের দু:সময় যাচ্ছে। তাই অবিলম্বে জাতীয়করনের ঘোষণা দেওয়ার অনুরোধ জানানো হয়।’

এছাড়া বিশ্ব শিক্ষক দিবস উপলক্ষে বেসরকারি শিক্ষক-কর্মচারী ফোরাম দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) আলোচনা সভা আহ্বান করেছেন। সেখানে শিল্পমন্ত্রীসহ শিক্ষা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

শিক্ষক সমিতির প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘পৃথিবীর ১৫১টি দেশে  ‘বিশ্ব শিক্ষক দিবস’ আনুষ্ঠানিকভাবে পালিত হলেও বাংলাদেশে আনুষ্ঠানিকভাবে উদযাপিত হয় না।’

এছারাও শিক্ষক নেতারা এ সমাবেশে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির উপস্থিতি কামনা করছেন।

ওয়াই এ/ এডিবি