NAVIGATION MENU

ভারতের উত্তর প্রদেশে ফের দলবেঁধে ধর্ষণ, তরুণীর মৃত্যু


ভারতের উত্তরপ্রদেশে গণধর্ষণের পর দলিত এক তরুণীর মৃত্যু পর দেশজুড়ে সৃষ্ট ক্ষোভের মধ্যে ওই একই রাজ্যে আরেক দলিত তরুণী গণধর্ষণ, নির্যাতনে মারা গেছেন।

প্রথম ঘটনাটি ঘটেছিল রাজ্যটির হাথরাসে আর দ্বিতীয় ঘটনাটি ঘটেছে ৫০০ কিলোমিটার দূরের বলরামপুরে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানাচ্ছে মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় বলরামপুরে ২২ বছর একজন দলিত তরুণীকে দলগতভাবে ধর্ষণ ও নির্যাতনের পর গুরুতর আহত অবস্থায় দেড়শ কিলোমিটার দূরে লখনউয়ের হাসপাতালে নেওয়ার সময় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনার দুই অভিযুক্তকে ইতোমধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

‘আমাকে বাঁচাও, আমি মরতে চাই না’—ধর্ষণের শিকার হয়ে বাড়ি ফেরার পর পরিবারের লোকের কাছে এ রকমই আকুতি জানিয়েছিলেন তিনি। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় পথেই মৃত্যু হয় তার।

বলরামপুরের পুলিশ সুপার রঞ্জন ভার্মা জানান, ‘থানায় ঘটনা নিয়ে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। পরিবারের লোক জানিয়েছে, মঙ্গলবার মধ্যরাত অবধি বাড়ি ফেরেনি তাদের মেয়ে। তাকে ফোনেও পাওয়া যাচ্ছিল না। পরে ওই তরুণী গভীর রাতে রিকশা করে বাড়ি ফেরে। তখন তার অবস্থা খুবই খারাপ ছিল। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল, কিন্তু বুধবার স্থানান্তরিত করার সময় পথেই মৃত্যু হয়।’

এই ঘটনার জেরে দু’জন যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানায় মেয়েটির পরিবার। ওই পুলিশ কর্মকর্তা আরও জানান, ‘ধর্ষণের পর তরুণীকে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গিয়েছিল অভিযুক্তরা। কিন্তু পরিস্থিতি খারাপ হলে তারা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরিবর্তে রিকশায় চাপিয়ে ওই নারীকে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়।’

ওই দুই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে বলে জানিয়েছে তিনি। তাদের বিরুদ্ধে মামলাও দায়ের করা হয়েছে।

এ ঘটনা সামনে আসতেই রাজ্যের যোগী আদিত্যনাথ প্রশাসনকে এক হাত নিয়েছেন সমাজবাদী পার্টির নেতা ও উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব। হাথরসের ঘটনা নিয়েও বিরোধীরা তোপের মুখে পড়ে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ।

ওআ/