NAVIGATION MENU

ভারতের ৩৮ হাজার বর্গ কিলোমিটার জমি জবরদখল করেছে চিন, সংসদে বললেন রাজনাথ


অবশেষে সংসদে স্বীকারোক্তি! চিন যে ভারতের জমি বেআইনিভাবে দখল করে রেখেছে, সংসদে সেটা সর্বসমক্ষে স্বীকার করলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। তবে, সেটা কখন কীভাবে চিনের দখলে গিয়েছে, সেটা স্পষ্ট করেননি তিনি।

বৃহস্পতিবার রাজ্যসভায়  লাদাখ ইস্যুতে বিবৃতি দিতে গিয়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানান, “চিন এখনও বেআইনিভাবে কেন্দ্রশাসিত লাদাখের প্রায় ৩৮ হাজার বর্গ কিলোমিটার জমি দখল করে রেখেছে।

সেই সঙ্গে পাকিস্তান তথাকথিত শিনো-পাকিস্তান এলাকা থেকে আরও ৫ হাজার ১৮০ বর্গ কিলোমিটার চিনের হাতে তুলে দিয়েছে। এসব ছাড়াও চিন ভারতের দখলে থাকা আরও ৯০ হাজার বর্গ কিলোমিটার জমিকে নিজেদের জমি বলে দাবি করেছে।

 তবে, এনডিএ  আমলে ভারতের কোনও জমি চিনারা দখল করেছে কিনা, সেটা স্পষ্ট করেননি প্রতিরক্ষামন্ত্রী। বস্তুত, তিনি বুঝিয়ে দিয়েছেন কংগ্রেসের আমলে চিন ভারতের যতটা এলাকা দখল করেছিল, চিনাদের দখলে এখনও সেটাই আছে।

তারপর আর কোনও জমি দখল হয়েছে কিনা, সে বিষয়ে স্পষ্ট কোনও তথ্য প্রতিরক্ষামন্ত্রী দেননি। তিনি জানিয়েছেন,”সীমান্ত পরিস্থিতি এখন এমন পর্যায়ে আছে, যার বিস্তারিত তথ্য সংসদে বলা সম্ভব নয়। আশা করি সাংসদরা সরকারের অবস্থানের সঙ্গে সহমত হবেন।”

সীমান্তে অশান্তির জন্য চিনকে দায়ী করে এদিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন,”এখনকার পরিস্থিতি অনেক আলাদা। আগের থেকে অনেক বড় এলাকা নিয়ে বিবাদ। এর সঙ্গে অনেক বেশি সেনাবাহিনীও জড়িয়ে।

আমার এখনও সব সমস্যার শান্তিপূর্ণ সমাধানের পক্ষে। কিন্তু চিন ১৯৯৩ এবং ১৯৯৬ সালে হওয়া দ্বিপাক্ষিক চুক্তিকে সম্মান করছে না। যতদিন শান্তিপূর্ণভাবে দুই দেশের সীমানা নির্ধারণ না হচ্ছে, ততদিন প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখাকে আমাদের সম্মান করতেই হবে।

 রাজনাথ সিং জানিয়েছেন, ভারত নিজেদের সীমানা রক্ষায় বদ্ধপরিকর। চিন সীমান্তে আরও বেশি পরিকাঠামো গড়তে প্রতিরক্ষায় বাজেট বরাদ্দও বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

এস এস