NAVIGATION MENU

ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ছয় বছরেও নির্মিত হয়নি বশেমুরবিপ্রবির কেন্দ্রীয় মন্দির


যুথি সাহা,বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি

ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন আর আশ্বাসেই সীমাবদ্ধ গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) কেন্দ্রীয় মন্দির নির্মাণ কার্যক্রম। ২০১৪ সালের ১০ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাফেটেরিয়ার পশ্চিম দিকে প্রতিষ্ঠাকালীন উপাচার্য প্রফেসর ড. খায়রুল আলম মন্দিরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। এরপর উপাচার্য পদে তিনবার রদবদল হয়। ছয় বছর পূর্তি হতে চললেও আলোর মুখ দেখেনি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রার্থনার এই মন্দিরটি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সনাতন সংঘের প্রচার  সম্পাদক শেখর সরকার জানান, 'বর্তমানে যে মন্দির আছে, এটা শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টাকা তুলে করা।  এর অবস্থা এক প্রকার জরাজীর্ণ এবং নিরাপত্তা ঝুঁকিতে আছে। একটা বিশ্ববিদ্যালয়ের মন্দির যেরকম হওয়া দরকার তার কিছুই এখানে নেই।'

বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মন্দিরের  উন্নয়ন সম্পর্কে সনাতন সংঘের সাধারণ সম্পাদক প্রীতিশ বিশ্বাস প্রত্যাশা করে বলেন,  'বর্তমান অস্থায়ী মন্দিরটা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ও বর্তমান সনাতন ধর্মাবলম্বী শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের প্রনামী থেকে তৈরি করা। যদিও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কিছু প্রনামী দেওয়া হয়েছিলো।  আমাদের বর্তমান উপাচার্যের  কাছে বিনীত আবেদন থাকবে আমাদের পূর্নাঙ্গ মন্দির নির্মান করে দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় এর সকল সনাতনীদের প্রার্থনার সুযোগ করে দিবেন।'

ওআ/