ন্যাভিগেশন মেনু

মুক্তি পেলেন পরীমনি


মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমনি কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন।

বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) ৯টা ৩৭ মিনিটে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় মহিলা কারাগার থেকে বেরিয়ে তিনি উপস্থিত জনতাকে হাত তুলে শুভেচ্ছা জানান। এ সময় পরীমনি সাদা পোশাকে ছিলেন এবং তাকে বেশ উচ্ছল ও হাসিখুশি দেখা যায়।  তার ডান হাতে ‌‘ডোন্ট লাভ মি বিচ’ আঁকা দেখা যায়।

এর আগে বুধবার সকাল সাড়ে ৮টায় পরীমনির খালু জসিম উদ্দিন ও আইনজীবী অ্যাডভোকেট নীলাঞ্জনা রিফাত সুরভী কারা ফটকে যান। এ সময় তার আইনজীবী বলেন, আদালত দুই পক্ষের আইনজীবীর শুনানির পর তাকে জামিন দেয়। তবে কাশিমপুর কারাগারে জামিনের কাগজপত্র না আসায় গতকাল তাকে মুক্তি দেয়নি কারা কর্তৃপক্ষ।

তার আগে মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ শুনানি শেষে ৫০ হাজার টাকা মুচলেকায় পরীমনির জামিন মঞ্জুর করেন।

গত ২২ আগস্ট একই আদালতে পক্ষে জামিন আবেদন করেন তার আইনজীবী মজিবুর রহমান। আদালত ১৩ সেপ্টেম্বর জামিন আবেদনের শুনানির জন্য দিন ধার্য করেন।

এরপর পরীমনির আইনজীবী মজিবুর রহমান দীর্ঘ সময় পর জামিন শুনানির বৈধতা চ্যালেঞ্জ হাইকোর্টে আবেদন করেন। এরপর ২৬ আগস্ট ২১ দিন পর জামিন শুনানির দিন নির্ধারণ করে মহানগর দায়রা জজ আদালতের দেওয়া আদেশ কেন বাতিল ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল দেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম ও বিচারপতি কে এম জাহিদ সারওয়ার কাজলের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রুল দেন।

রুলে আদালত আরও জানতে চেয়েছেন, জামিন আবেদনের শুনানি এগিয়ে দুই দিনের মধ্যে করতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, বিবাদীদের আগামী ১ সেপ্টেম্বরের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। এর মধ্যেই জামিন শুনানির তারিখ এগিয়ে ৩১ আগস্ট দিন ধার্য করেন আদালত।

গত ৪ আগস্ট রাতে প্রায় চার ঘণ্টার অভিযান শেষে বনানীর বাসা থেকে পরীমনি ও তার সহযোগী দীপুকে আটক করে র‍্যাব। এ সময় পরীমনির বাসায় বিভিন্ন মাদক পাওয়া গেছে বলে জানায় র‍্যাব। ৫ আগস্ট র‍্যাব-১ বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পরীমনি ও তার সহযোগীর বিরুদ্ধে বনানী থানায় মামলা করে।

ওআ/