NAVIGATION MENU

লতার ফাঁকে উঁকি দিচ্ছে কৃষকের স্বপ্ন


শীতের মৃদু হাওয়ায় শিম ক্ষেতে দুলছে থোকা থোকা ফুল। এসব ফুলের মাঝে উঁকি দিচ্ছে কৃষকের স্বপ্ন। নানা দুর্যোগ পেরিয়ে বাম্পার ফলনের সম্ভাবনায় কৃষকের মুখে যেন ফুটেছে হাসির ঝিলিক।

বুধবার ( ১৮ নভেম্বর) দুপুরে রংপুরের পীরগাছা উপজেলার অন্নদানগর ইউনিয়নের প্রতাপ জয়সেন গ্রামের কৃষকের মাঠে সরেজমিনে দেখা গেছে শিমফুলের স্বর্গরাজ্য। এই মাঠে সবুজ লতার ফাঁকে ফুলে ফুলে রাঙিয়ে উঠেছে পুরো ক্ষেত।

জানা যায়, অন্নদানগর ইউনিয়নের প্রতাপ জয়সেন গ্রামের কৃষক শফিকুল ইসলাম প্রতিবছরের ন্যায় এবারও সাতদরগা ব্লকের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তার পরামর্শে সেপ্টেম্বর মাসে বারি-১ জাতের শিমবীজ ৫০ শতক জমিতে বপন করেন। বর্তমানে এসব বীজ ফুটিয়ে গাছগুলো উঠেছে মাচায়। এ গাছের লতা-পাতায় ভরে গেছে পুরো ক্ষেত। এই ক্ষেতে ফুটেছে থোকা থোকা ফুল ও ফল।

সপ্তাহখানেক পর থেকে কয়েক দফায় তুলে নিতে পারবে স্বপ্নের এই ফসল। শীতের সবজি হিসেবে এখানকার বাজারে শিমের চাহিদা রয়েছে প্রচুর। সেই সঙ্গে অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছরে শিমের দামও রয়েছে ভালো।

বর্তমানে প্রতি কেজি শিম ৫০ থেকে ৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এ থেকে ভাগ্য বদলের স্বপ্ন দেখছেন প্রতাপ জয়সেন গ্রামের কৃষক শফিকুল ইসলাম।

সাতদরগা ব্লকের উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, শীতকালীন সবজি চাষীদের ভাল ফলন প্রাপ্তির জন্য সকল ধরনের পরামর্শ প্রদান করা হচ্ছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে শিম চাষীরা লাভবান হবে।

উপজেলা কৃষি অফিসার শামীমুর রহমান বলেন, বারি শিম-১ অত্যন্ত প্রোটিন সমৃদ্ধ সবজি শিম। যার ফলে বাজারে এটির চাহিদা বেশি। তাই কৃষকরা যাতে করে লাভবান হতে পারে, সে বিষয়ে তাদের সার্বিক পরামর্শ প্রদান করার জন্য আমাদের কর্মীরা মাঠে রয়েছে।

এফ আর/ এস এ/এডিবি