NAVIGATION MENU

শরীর ভালো রাখতে শীতে যা খাবেন


অন্য সময়ের চেয়ে শীতে হাত-পা থেকে শুরু করে শরীরের প্রত্যেক অঙ্গের যত্ন একটু বেশি নিতে হয়। শীতে শরীর সুস্থ রাখতে খাবার অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। তাই শীতকালে খাবার বাছাইয়ে সচেতন হওয়া উচিত।

শীতে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশ খানিকটা কমে যায়। ঠাণ্ডা আবহাওয়ার কারণে সর্দি, কাশি, পেটে সমস্যা, জ্বর, ঠাণ্ডাজনিত গলাব্যথা এ ধরনের বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।

তাই শরীরের পরিপাক ক্রিয়া স্বাভাবিক রাখতে রোজকার মেনু ও দৈনন্দিন জীবনযাপনে কিছু পরিবর্তন আনা প্রয়োজন।

আসুন জেনে নিই শীতে আপনার শরীরের জন্য কেমন খাবার প্রয়োজন। 

হলুদ  

হলুদে খুবই উপকারি একটি খাবার। হলুদে রয়েছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টিভাইরাল ও অ্যান্টিফাঙ্গাল গুণ। এক গ্লাস গরম দুধের সঙ্গে এক চা চামচ হলুদগুঁড়ো মিশিয়ে প্রতিদিন খেতে পারেন। এই পানীয় ফ্লু-সর্দি-জ্বর থেকে আপনাকে দূরে রাখবে।

গুড়  

গুড়ে রয়েছে আয়রন, জিঙ্ক ও সেলেনিয়মের মতো নানা মিনারেল ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এতে শরীর গরম থাকে। কাশি হওয়া থেকে বাঁচায়।

ঘি  

অনেকে অতিরিক্ত চর্বির ভয়ে ঘি খেতে চান না। তবে সব খাবার পরিমাণমতো খেলে খুব একটা সমস্যা হয় না। গরম ভাতে ও অন্যান্য খাবার তৈরিতে ঘি ব্যবহার করতে পারেন। এতে শীতে শরীর ভালো থাকবে।

আমলকি 

আমলকিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি। আমলকি খেতে পারেন। ত্বক ও চুলের যত্নে আমলকির জুড়ি নেই। 

তিল 

শীতকালে তিল খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বস্তু। তিল শরীরকে ভেতর থেকে গরম রাখে। এছাড়া রোগ প্রতিরোধ শক্তি বৃদ্ধি করে।

পানি 

শীতে পানির তৃষ্ণা কম লাগে। তাই এ সময়ে শরীরে পানিশূণ্যতা দেখা দিতে পারে। ফলে শরীর হাইড্রেট থাকে। এক গ্লাস পানিতে এক টুকরো লেবু মিশিয়ে খেতে পারেন।

ভিটামিন সি-যুক্ত খাবার 

ভিটামিন সি-যুক্ত খাবার যেমন লেবু, কমলালেবু, পেয়ারা, মাল্টা প্রতিদিন খাবারের তালিকায় রাখার চেষ্টা করুন। এসব ফল ভালো কোলেস্টেরলের পরিমাণ বাড়াতে এবং খারাপ কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমাতে সাহায্য করে। ফল শীতে দেহের উষ্ণতা বাড়াতেও সাহায্য করে এবং ত্বক রাখে সুরক্ষিত।

শাক  

শীতের সময়টায় বিভিন্ন ধরনের শাক পাওয়া যায়। বেছে নিতে পারেন ছোলার শাক, মোটর শাক, খেসারি শাক, পালং শাক, বতুয়া শাক যা ভিটামিন, মিনারেলস আর আঁশ সমৃদ্ধ।

মৌসুমি সবজি 

শীতে শরীরে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের প্রয়োজনীয়তা বাড়ে। সবজিতে থাকে আঁশ ও প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট উপাদান। তাই মৌসুমি সবজি যেমন ফুলকপি, মটরশুঁটি, শিম, মুলা, শালগম, চালকুমড়া, মিষ্টিকুমড়া, পেঁপে, মরিচ, নানা ধরনের বীজ, বাঁধাকপি, ব্রকলি, লাউ, গাজর আর ফলের মধ্যে আপেল, আঙুর, ডালিম, নাশপাতি, কমলা, আমড়া, বরই ইত্যাদি রাখুন রোজকার খাবারের তালিকায়। টাটকা ফল ও সবজিতে আছে বায়োটিন, যা ত্বক ও চুল ভালো রাখে।

সিবি/এডিবি