NAVIGATION MENU

শাল্লা কাণ্ডে বিভিন্নজনের নিন্দা, ২ মামলায় আটক ২৪


দেশের পূর্বাঞ্চলীয় জেলা সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলায় হিন্দু অধ্যুষিত গ্রামে হেফাজতে ইসলামের সমর্থকদের হামলা, ভাঙচুর লুটপাট কাণ্ডে অন্তত ২৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

অনেকেরেই ধারণা, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের আগেই সাম্প্রদায়িক হিংসার ঘটনা ঘটলো।  অর্থাৎ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফর প্রশ্ন বিদ্ধ করতে তৎপর একটি মহল। তারা মোদির সফর প্রতিহত করার ঘোষণা দিয়েছে।

এ ঘোষণা দিয়েছে ইসলামপন্থী সমমনা কিছু রাজনৈতিক দল ও বাম সমর্থিত ছাত্র ফ্রন্ট। নরেন্দ্র মোদির সফরের আগে দেশে সাম্প্রদায়িক হিংসা উসকে দিতে চায় ওই মৌলবাদীরা। এর জন্য দু’টি সম্প্রদায়ের মধ্যে বিদ্বেষ তৈরি করার চেষ্টা করছে তারা।

এদিকে হামলা কাণ্ডের ৩৬ ঘন্টা পর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দু'টি মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় ৮০ জনের নাম উল্লেখ করে এবং দেড় সহস্রাধিক  ব্যক্তিকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

একটি মামলার বাদী শাল্লা থানার এসআই আব্দুল করিম। অন্য মামলার বাদী স্থানীয় হবিবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নোয়াগাঁও গ্রামের বাসিন্দা বিবেকানন্দ মজুমদার বকুল।

গত সোমবার দিরাই উপজেলা শহরে আয়োজিত এক সমাবেশে হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগীর ও যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক বক্তব্য দেন।

পরে মামুনুল হককে নিয়ে নোয়াগাঁও গ্রামের ঝুমন দাস (২৮)  ফেসবুকে পোস্ট দেওয়া নিয়ে উত্তেজনা দেখা দিলে মঙ্গলবার রাতে নোয়াগাঁও গ্রামের লোকজন ঝুমনকে পুলিশে দেন। এরপর বুধবার সকালে নোয়াগাঁও গ্রামে হামলা ঘটে। স্থানীয় প্রশাসনের দেওয়া তথ্য অনুযায়ি বুধবারের এই হামলায় গ্রামটিতে হিন্দুদের ৮৮টি বাড়ি-ঘর এবং সাত আটটি পারিবারিক মন্দির ভাঙচুর করা হয়েছে।

গ্রামবাসী অভিযোগ করেন, তাদের বিভিন্ন বাড়ি থেকে গচ্ছিত থাকা টাকা এবং স্বর্ণালঙ্কার লুট করেছে হামলাকারীরা। ঘটনার উস্কানিদাতা দিরাই থানার নাচনী গ্রামের বাসিন্দা ও সরমঙ্গল ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য (মেম্বার) স্বাধীন মিয়াকে প্রধান আসামী করা হয়েছে।

এ ছাড়াও সরমঙ্গল ইউনিয়নের চন্দ্রপুর ও নাচনী এবং শাল্লা থানার হবিবপুর কাশিপুর গ্রামের আরও দেড় হাজার জনকে আসামি করা হয়েছে। পুলিশ সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে, আটকদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের আটকে অভিযান চলছে। আটকদের সুনামগঞ্জ সদর থানা, দিরাই এবং শাল্লা থানায় পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে।সুনামগঞ্জে হিন্দুদের বাড়িঘরে সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় নেত্রকোণায় আর সাতক্ষীরায় মানববন্ধন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।

ফেইসবুকে কথিত একটি পোস্টকে কেন্দ্র করে জেলার শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামে বুধবার সকালে হামলা হয়।

এসএস