NAVIGATION MENU

বাংলাদেশ কভিড ভ্যাকসিন উৎপাদনের সক্ষমতা রাখে: মোস্তাফিজুর রহমান


'বাংলাদেশের ওষুধ আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন হওয়ায় বিশ্ববাজারে তার যথেষ্ট সুখ্যাতি রয়েছে। প্রযুক্তিগত ও প্যাটেন্ট সুবিধা পেলে বাংলাদেশের ওষুধ শিল্প আবিষ্কৃত কভিড-১৯ ভ্যাকসিন ব্যাপক হারে উৎপাদনের সক্ষমতা রাখে'

গত সোমবার ও মঙ্গলবার (৫ ও৬ অক্টোবর) জেনেভায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) সদরদপ্তরে অনুষ্ঠিত নির্বাহী বোর্ডের ৫ম বিশেষ সভায় জেনেভাস্থ বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান এ কথা বলেন।

এ সময় তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সময়োচিত ও সঠিক সিদ্ধান্ত এবং যথাযথ দিকনির্দেশনায় বাংলাদেশ সফলতার সাথে করোনা সংকট মোকাবিলা করছে বলেও উল্লেখ করেন।

সভায় কভিড-১৯-এর উপর গৃহীত কার্যক্রমের উপর আলোচনাকালে স্থায়ী প্রতিনিধি কভিড ভ্যাকসিনের সর্বজনীন, সময়োপযোগী, সুষ্ঠু ও ন্যায়সঙ্গত বণ্টন এবং সুষম অধিগম্যতা নিশ্চিত করতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে দৃশ্যমান ও কার্যকর ভূমিকা রাখতে আহ্বান জানান।

চলমান মহামারি বিশ্ব স্বাস্থ্য ব্যবস্থার দুর্বলতাগুলোকে উন্মোচিত করেছে উল্লেখ করে তিনি নিম্ন ও মধ্যম আয়ের দেশসমূহের চাহিদা মেটাতে আন্তর্জাতিক অংশীদারিত্ব শক্তিশালীকরণের উপর জোর দেন। এ সময় তিনি মানসিক স্বাস্থ্যের উপর কভিড-১৯-এর নেতিবাচক প্রভাব নিরূপণ ও তা হ্রাসকল্পে সদস্য রাষ্ট্রসমূহকে যথাযথ সহায়তা প্রদানেরও আহবান জানান।

এ ছাড়াও কভিড-১৯ মোকাবেলার পাশাপাশি তিনি টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার স্বাস্থ্য সংক্রান্ত লক্ষ্যগুলো অর্জনে সম্মিলিত প্রয়াস অব্যাহত রাখতে বলেন। 

সভার দ্বিতীয়দিনে মহামারির প্রস্তুতি ও মোকাবেলা বিষয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা কর্তৃক নবগঠিত প্যানেলের (IPPPR) কার্যক্রমের উপর আলোচনায় অংশ নিয়ে স্থায়ী প্রতিনিধি ভবিষ্যতে এ ধরনের মহামারি প্রতিহতকরণে আগাম সতর্কতামূলক উপায় বের করার পাশাপাশি কার্যকর সমাধান খোঁজার উপর গুরুত্বারোপ করেন।

নিউজিল্যান্ডের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী হেলেন ক্লার্ক এবং লাইবেরিয়ার প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি এলেন জনসন স্যারলিফ এই প্যানেলের সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেছেন। 

এডিবি/