NAVIGATION MENU

আমরা রোগীকে হাসপাতালেই চিকিৎসা দিতে সক্ষম হয়েছি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী


সকলের সহযোগিতায় আমরা করোনা রোগীকে হাসপাতালে রেখেই চিকিৎসা দিতে সক্ষম হয়েছি। এটা একটা বিরাট অর্জন বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক।

রবিবার (১৮ এপ্রিল) মহাখালী ডিএনসিসি’র মার্কেটটি নতুনরূপে একটি পূর্ণাঙ্গ হাসপাতালের কার্যক্রম উদ্বোধনকালে মন্ত্রী এ কথা বলেন।

এসময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘করোনার এই সময় আমাদের ভারতের মতো এক বেডে তিন জনকে রাখতে হয়নি। বিভিন্ন দেশে তথা উন্নত দেশে তাবুতে রোগী রাখতে হয়েছে। আমাদের দেশে এখনো কাউকে তাঁবুতে রাখতে হয়নি।’

মন্ত্রী বলেন, ‘হঠাৎ করেই সংক্রামণ বেড়ে গেল। সংক্রমণ বাড়ার কারণ সামাজিক দূরত্ব বজায় না রাখা। দেখা গেল যখন সংক্রমণ কমে গেল মৃত্যুর হার কমে গেল। আর যখন আমরা ভ্যাকসিন দেয়া শুরু করলাম। আমাদের লোকজন বের হয়ে গেল, বেপরোয়া হয়ে গেল। আমাদের সংক্রমণ হঠাৎ করে ১০ গুণ বেড়ে গেল। ১০ গুণ বেড়ে যাওয়াতে মৃত্যু বেড়ে গেল। হাসপাতালে প্রয়োজন বেড়ে গেল।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের বুঝতে হবে কোভিড এখনো চলে যায়নি। আমাদের দেশকে রক্ষা করতে হবে। আমরা রোগীদের আইসিইউতে দিতে চাইনা। আমরা ভালো রাখতে চাই, আমরা নিজেরা যদি না মানি তাহলে একপর্যায়ে বাংলাদেশের অর্থনীতি, বাংলাদেশের শিল্প-কারখানা আইসিইউতে চলে যাবে। কাজেই আমাদের খেয়াল রাখতে হবে যেন কোভিড আমরা নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আপনারা বেসামাল ভাবে চলাফেরা করবেন না, বাইরে যাবেন মাস্ক পরবেন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন। নিজে ভালো থাকবেন নিজের প্রিয়জনকে ভালো রাখবেন। মনে রাখতে হবে আমরা যেন প্রিয়জনের মৃত্যুর কারণ না হই।’

এসময় অন্যান্যের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন- ডিএনসিসি মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব লোকমান হোসেন মিয়া, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক প্রফেসর ড. আবুল বাশার মোহাম্মদ খুরশিদ আলম, ডিএনসিসি কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাছির উদ্দিন।

এমআইআর/এডিবি