NAVIGATION MENU

চিনের ট্রয়াল টিকা আসার অপেক্ষায় ঢাকা


চিন থেকে পাঠানো ট্রয়াল টিকার অপেক্ষায় রয়েছে- আইসিডিডিআরবি।চিনের সিনোভ্যাক কোম্পানির ভ্যাকসিনের নমুনা দেশে এসে পৌঁছালে শুরু হবে ট্রয়াল।

ভ্যাকসিনের ট্রায়াল শুরুর জন্য তালিকাভুক্ত সাতটি হাসপাতালে শুরু করবে মূল কার্যক্রম। এ ব্যাপারে এরই মধ্যে হাসপাতালগুলোর সঙ্গে প্রাথমিক আলাপ-আলোচনা শেষ করেছে আইসিডিডিআরবি।

তবে হাসপাতালগুলোতে কার কার ওপর ভ্যাকসিন পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করা হবে, সেই তালিকা এখনো তৈরি হয়নি।

তবে কোনো কোনো হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ হাসপাতালের সব চিকিৎসক-নার্স-কর্মকর্তা-কর্মচারীকে বিষয়টি অবহিত করে প্রস্তুত থাকতে বলেছে। আবার কোনো কর্তৃপক্ষ ঠিকভাবে বিষয়টি জানায়নি সবাইকে।

এ পরিস্থিতির মধ্যেই একাধিক হাসপাতালে কিছু স্বাস্থ্যকর্মী ওই ভ্যাকসিন গ্রহণকারীদের জন্য টাকা বরাদ্দ বিষয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন।

যদিও এ বিষয়ে বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যান্ড রিসার্চ কাউন্সিল (বিএমআরসি), আইসিডিডিআরবিসহ সংশ্লিষ্ট সব পর্যায় থেকে পরিষ্কারভাবে বলা হয়েছে-এই ভ্যাকসিন গ্রহণকারীদের কোনো টাকা-পয়সা দেওয়া হবে না বা প্রটোকলেও এমন কিছু নেই।

যাঁরা বিনা মূল্যে স্বেচ্ছায় ট্রায়ালে অংশ নিতে রাজি থাকবেন, শুধু তাঁদেরই প্রটোকল অনুসারে অন্য বিষয়গুলো মেনে ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য নাম তালিকাভুক্ত করা হবে।

মুগদা হাসপাতালের একজন চিকিৎসক বলেন, ট্রায়ালের টাকা-পয়সা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। ফলে আমাদের মধ্যে এক ধরনের সংশয় তৈরি হচ্ছে। আমরা তো বিনা টাকায়ই ভ্যাকসিন নিতে আগ্রহী।

এ বিষয়ে বিএমআরসির পরিচালক ডা. মাহমুদ উজ জাহান বলেন, সিনোভ্যাক ভ্যাকসিন ট্রায়ালের প্রটোকলের মধ্যে ভ্যাকসিন গ্রহণকারী কাউকে নগদ কোনো টাকা দেওয়ার অপশন নেই।

আইসিডিডিআরবির বিজ্ঞানী ড. কে এম জামানও বলেন, ‘আমরা স্বেচ্ছাসেবকদেরই এই কাজে নিচ্ছি। টাকার বিনিময় হলে তো আর স্বেচ্ছাসেবা হয় না।'

এস এস