NAVIGATION MENU

বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নুল হক সিকদারের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতির শোক


দেশের অন্যতম শিল্পগ্রুপ সিকদার গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ ও বেসরকারি ন্যাশনাল ব্যাংকের চেয়ারম্যান, বিশিষ্ট শিল্পপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নুল হক সিকদারের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

শোকবার্তায় রাষ্ট্রপতি মরহুম জয়নুল হক সিকদারের রুহের মাগফিরাত কামনা করেছেন ও তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন।

বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা ৩০ মিনিটে দুবাইয়ের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দেশের অন্যতম শিল্পগ্রুপ সিকদার গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ ও বেসরকারি ন্যাশনাল ব্যাংকের চেয়ারম্যান, বিশিষ্ট শিল্পপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নুল হক সিকদার ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯১ বছর।

জয়নুল হক সিকদার বাংলাদেশের উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রার অন্যতম অংশীদার হিসেবে দীর্ঘ সাত দশকের বেশ সময় ধরে দেশের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, আবাসন, পর্যটন, অর্থনীতিসহ বিভিন্ন খাতে অসংখ্য প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন। এসব প্রতিষ্ঠানে প্রায় ২০ হাজারেরও বেশি মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হয়েছে।

স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশের উজ্জ্বলতম শিল্প উদ্যোক্তা জয়নুল হক সিকদার ১৯৩০ সালের ১২ আগস্ট ভারতের আসামে জন্মগ্রহণ করেন। পরে ১৯৪৭ সালে দেশভাগের সময় পরিবারের সাথে বাংলাদেশে চলে আসেন। জয়নুল হক সিকদার সেই ১৯৪৫ সাল থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিশ্বস্ত ও ঘনিষ্ঠ সহচর হিসেবে তাঁর পাশে থেকেছেন।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যার চারদিন পর ১৯ আগস্ট রায়েরবাজারে কুলখানির আয়োজন করেন। এজন্য সে সময়ের সামরিক বাহিনীর গোয়েন্দা সংস্থা তাঁকে নানাভাবে হয়রানি করে এবং ভয়-ভীতি দেখায়, এমনকি তাঁকে জেলও খাটতে হয়েছে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর থেকে বিচার কার্যক্রম শুরু হওয়া পর্যন্ত এই লম্বা সময় জয়নুল হক সিকদার তাঁর প্রিয় “মুজিব ভাই” এর প্রতি ভালবাসা থেকে খাটে না ঘুমিয়ে ঘরের মেঝেতেই ঘুমাতেন।

এমআইআর/ওআ