NAVIGATION MENU

তারুণ্য ধরে রাখবে এই অভ্যাসগুলো


চেহারায় আর চাল-চলনে তারুণ্য ধরে রাখতে কে না চায়? ৩০-৪০ বছরের পর থেকে তারুণ্যের ভাব যেন কিছুটা কমে যেতে শুরু করে।

প্রতিদিনের ছোট ছোট কিছু বদঅভ্যাস এই প্রক্রিয়াকে আরও ত্বরান্বিত করে।

একটু সচেতনতা আর ভালো কিছু অভ্যাস বা চর্চা চেহারায় সতেজ ভাব ধরে রাখতে পারে।

জেনে নেওয়া যাক, তারুণ্য কীভাবে ধরে রাখা যায়।

নিদ্রাহীনতা:  নানা ব্যস্ততা, শহরজুড়ে যানজটের কারণে দেরি করে বাড়ি ফেরাসহ নানা কারণে নিদ্রাহীনতা আমাদের অনেকেরই দৈনন্দিন জীবনের অন্যতম অংশ হয়ে গেছে। কারণে কিংবা অকারণে এই যে রাত জাগার অভ্যাস বয়স্ক দেখানোর বড় একটি কারণ।

চিকিৎসকদের মতে, একজন ব্যক্তির প্রতিদিন কমপক্ষে সাত ঘণ্টা ঘুমানো প্রয়োজন। এর চেয়ে ঘুম কম হলে মানুষের ত্বকের স্বাভাবিক মসৃণতা কমে যায়। চোখের নিচে ভাঁজ পড়ে যায়, ঢিলা হয়ে আসে ত্বক। তাই তারুণ্য ধরে রাখতে নিদ্রাহীনতার অভ্যাস ত্যাগ করা জরুরি।

অতিরিক্ত চিনি খাওয়া: যারা খুব বেশি চিনি খেতে পছন্দ করেন, তাঁদের জন্য দুঃসংবাদ। কারণ অতিরিক্ত চিনি বা চিনিজাতীয় খাবার চেহারায় দ্রুত বয়স্ক ভাব ফুটিয়ে তোলে। তাই আজ থেকেই ছেড়ে দিন এই অভ্যাস।

কম ফল ও শাক-সবজি খাওয়ার অভ্যাস: তারুণ্য ধরে রাখতে হলে ফল এবং শাকসবজির কোনো বিক্ল্প নেই। ত্বকের সজীবতা রক্ষা করতে এগুলো অত্যন্ত জরুরি।

তাই যদি দেখেন দ্রুত বয়স বাড়ছে, খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন আনুন। ভাজাপোড়া বা অস্বাস্থ্যকর খাবার বাদ দিয়ে খাদ্যতালিকায় যোগ করুন রঙিন ফল আর তাজা শাকসবজি।

ডায়েটিং: শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমিয়ে ফেলতে অনেকেই মাত্রাতিরিক্ত ডায়েটিং করেন। এটাই অনেকের ক্ষেত্রে পুষ্টিহীনতার কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

অতিরিক্ত ডায়েটিংয়ের ফলে দেহে অ্যান্টি-অক্সিডেন্টসহ বেশ কিছু ভিটামিন ও মিনারেলের ঘাটতি দেখা দেয়। এসব ঘাটতি চেহারায় বয়স্ক ভাব বাড়িয়ে দেয়। ফলে ডায়েটিং করুন বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী। গ্রহণ করুন প্রয়োজনীয় পুষ্টি।

কম বা বেশি ব্যায়াম: একেবারে ব্যায়াম বা শরীরচর্চা না করা কিংবা অতিরিক্ত ব্যায়াম করা এই দুটোই স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।

চেহারায় বয়সের ছাপ বাড়িয়ে তুলতে এই দুটির গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। তাই বয়স, শরীরের গঠন, জীবনযাপনের ধরন অনুযায়ী পর্যাপ্ত ব্যায়াম করা উচিত।

যৌন জীবন: মনোবিজ্ঞানীদের মতে, মানুষের যৌন জীবন তার চেহারায় প্রভাব ফেলে। নিয়মিত যৌন জীবন আপনার বয়স সাতগুণ কম দেখাতে সাহায্য করবে। এই অভ্যাসের কারণে একই সঙ্গে ঘুম ভালো হবে এবং ক্লান্তি দূর হবে।

অতিরিক্ত স্বাস্থ্যসম্মত জীবনযাপন: অতিরিক্ত স্বাস্থ্যসম্মত জীবনযাপন করতে গিয়ে একটু পর পরই হাতমুথ ধোয়া ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। কারণ এতে ত্বকের আর্দ্রতা নষ্ট হয়ে যায়। ত্বকের আর্দ্রতা কমে গেলে তা রুক্ষ হয়ে বয়স্ক দেখায়।

এ জন্য দৈনন্দিন বিভিন্ন স্বাস্থ্যকর অভ্যাসের পাশাপাশি বিভিন্ন ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম ব্যবহার করা যেতে পারে। এসব ক্রিম ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রেখে বুড়িয়ে যেতে বাধা দেয়।

সানস্কিন সামগ্রী: সূর্যরশ্মি থেকে ত্বককে বাঁচাতে সানস্ক্রিন সামগ্রী ব্যবহার করা সব সময়ই খুব জরুরি। যদি ঘরের ভেতরেও থাকেন তাহলেও স্বল্পমাত্রার সানস্ক্রিন সামগ্রী ব্যবহার করুন। কারণ বাইরে থেকে সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি ঠিকই ঘরে প্রবেশ করে।

আর এই রশ্মি ত্বকের ভীষণ শত্রু। গবেষণায় দেখা গেছে, যারা প্রতি সপ্তাহে অন্তত চারবার সানস্ক্রিন ব্যবহার করেন তাঁরা অনেকদিন তারুণ্য ধরে রাখতে পারেন।

ওআ/এডিবি