NAVIGATION MENU

চেন্নাই’র ‘চিকেন সিক্সটি ফাইভ’


১৯৬৫ সালে তামিল নাইড়ুর এক রেস্তোরাঁ ব্যবসায়ী এএম বুহারি ‘চিকেন সিক্সটি ফাইভ’ নামে দারুণ স্বাদযুক্ত খাবার প্রবর্তন করেন। যা নিয়ে রয়েছে নানা আলোচনা।

’৬৫ সালের জন্য নাম হয়েছে ‘চিকেন সিক্সটি ফাইভ’। আবার মনে করা হয় ৬৫ রকম মরিচ ও মসলা ব্যবহার করে এই পদ তৈরি করা হয়। মুরগি ৬৫ টুকরা করে এই খাবার তৈরি করার কারণে এই নাম- এমনও মনে করেন অনেকে। 

আরেকটা প্রচলিত ধারণা হচ্ছে ১৯৬৫ সালে চেন্নাইতে সৈনিকদের ক্যান্টিনে খাবারের তালিকা ছিল দীর্ঘ। সেই তালিকায় এই খাবারের সিরিয়াল নম্বর ছিল ৬৫। অনেকেই সহজভাবে খাবার অর্ডার করার সময় খালি নম্বরটা উল্লেখ করতেন। সেখান থেকে এই পদের নাম হয়ে যায় চিকেন সিক্সটি ফাইভ।

প্রচলিত গল্প যাই হোক, নাস্তা কিংবা সাইড ডিশ হিসেবে এটা খুবই মজার একটি পদ।    

উপকরণ: হাড় ছাড়া মুরগির মাংস ২৫০ গ্রাম (চৌক করে কাটা)। আদা ও রসুন বাটা ১ চা-চামচ করে। চালের গুঁড়া ২ টেবিল-চামচ। 

হলুদ-গুঁড়া ১ চা-চামচ। মরিচ-গুঁড়া দেড় চা-চামচ। গোলমরিচ গুঁড়া আধা চা-চামচ। জিরা ও ধনে গুঁড়া ১ চা-চামচ করে। লবণ স্বাদ অনুযায়ী। তেল পরিমাণ মতো। 

টক দই ১ টেবিল-চামচ। লেবুর রস ১ টেবিল-চামচ। টমেটো সস ১ চা-চামচ। চিলি সস ১ চা-চামচ। 

ফ্রাইড চিকেন টসের জন্য: কাঁচা-মরিচ কুচি ২/৩টি। রসুনকুচি ১ টেবিল-চামচ। কারিপাতা কয়েকটা। 

পদ্ধতি: প্রথমে মাংসের সঙ্গে সব উপকরণ ভালোভাবে মেখে ঘণ্টা দু’এক মেরিনেইট করে রাখতে হবে।

একটা প্যানে ডুবো তেলে মাংসগুলো একটু লালচে করে ভেজে প্যানে টস করতে হবে।এর জন্য আরেকটা প্যানে ২ টেবিল-চামচ তেল দিয়ে তার মধ্যে রসুন কুচি, কাঁচামরিচ কুচি ও কারিপাতা দিয়ে এক মিনিট ভেজে তার মধ্যে ভেজে রাখা মুরগির মাংসগুলো দিয়ে এক মিনিটের মতো টস করে নামিয়ে নিন।

তারপর একটা পরিবেশন পাত্রে ঢেলে পরিবেশন করুন অ্যাপিটাইজার, নাস্তায় বা সাইড ডিশ হিসেবে।

এস এস